কলা-২০০০, ডিম-১০০০, রুটি-৩০০০ টাকা!

ঢাকা মেডিকেল কলেজের করোনা ইউনিটে যেসব চিকিৎসক, নার্স ও স্বাস্থ্যকর্মীরা কোভিড-১৯ রোগীদের সেবা দিচ্ছেন তাদের এক মাসের থাকা-খাওয়ার বিল হয়েছে ২০ কোটি টাকা। এমন খবর প্রকাশ হওয়ার পর দেশজুড়ে তীব্র সমালোচনা চলছে। এ নিয়ে সংসদে কথা বলতে গিয়ে বিরোধী দল জাতীয় পার্টির পীর ফজলুর রহমান মিসবাহ কিছু খাবারের দাম তুলে ধরেন।

তিনি জানান, ওই খাবারের বিলে একটা কলার দাম ধরা হয়েছে ২ হাজার টাকা, একটা ডিমের দাম ১ হাজার টাকা ও এক স্লাইস রুটির দাম ৩ হাজার টাকা (দুই স্লাইস ৬ হাজার)!

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাও সংসদে এ নিয়ে কথা বলেছেন। এমন বিলকে ‘অস্বাভাবিক’ আখ্যা দিয়ে তদন্তের আশ্বাস দিয়েছেন তিনি। এছাড়া আরো অনেক সংসদ সদস্য এ নিয়ে কথা বলেছেন। তবে স্বাস্থ্যমন্ত্রী এসব অভিযোগ নাকচ করে দিয়ে বলেছেন, চিকিৎসকদের থাকা-খাওয়ার বিলে কোনো দুর্নীতি হয়নি।

সুনামগঞ্জ-৪ আসনের সংসদ সদস্য পীর ফজলুর রহমান মিসবাহ বলেন- খবরে দেখেছি, পিপিই কেনার দুর্নীতির কারণে জিম্বাবুয়ের স্বাস্থ্যমন্ত্রীকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। আর আমাদের দেশের স্বাস্থ্যখাতে দুর্নীতির হাজার হাজার অভিযোগ থাকার পরও স্বাস্থ্যমন্ত্রী এখানো পদ আকড়ে ধরে আছেন। আমি প্রধানমন্ত্রীকে অনুরোধ করছি, স্বাস্থ্যমন্ত্রীকে অন্য কোনো দায়িত্ব দিন। সারাদেশের মানুষও তাই বলছে।

তিনি আরো বলেন, স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের অবস্থা এখন মীনা কার্টুনের মতো। ওই কার্টুনে মিঠু নামে একটা টিয়া পাখি থাকে। তাকে যা শিখিয়ে দেওয়া হয়, ঘুরে ঘুরে সে তাই বলতে থাকে। আমাদের স্বাস্থ্যমন্ত্রীর অবস্থাও এখন তাই। তিনি মাঝে মাঝে লাইভে হাজির হয়ে গৎবাঁধা কিছু কথা বলেন। এর বাইরে আর কোথাও তাকে দেখা যায় না।

মন্তব্য লিখুন :