চারদিন ব্যাপি ভিন্নধর্মী আয়োজনে ড্যাফোডিল বিশ্ববিদ্যালয়

২০০২ সালের ২৪ জানুয়ারি যাত্রা শুরু করে দেশের অন্যতম সেরা বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয় ড্যাফোডিল ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটি (ডিআইইউ)। বিশ্ববিদ্যালয়টি দেশের প্রথমবারের মতো ভিন্নধর্মী উৎসবের আয়োজন করতে যাচ্ছে। এই বছর কোভিড-১৯ মহামারীর কারণে বিশ্ববিদ্যালয়ের সকল ক্লাবের সমন্বয়ে একটি অনলাইন প্ল্যাটফর্মে ‘সামার অনলাইন ফেস্ট ২০২০’ ইভেন্টটি আয়োজন করছে।

ড্যাফোডিলে সামার অনলাইন ফেস্ট ২০২০ আয়োজনটি হোস্ট করছে বিশ্ববিদ্যালয়টির ৩২টি ক্লাব। ক্লাবগুলো এই আয়োজনকে সফল করে তুলতে ধারাবাহিক ভাবে কাজ করে যাচ্ছে। ড্যাফোডিল ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটি কমিউনিকেশন ক্লাব, অল স্টারস ড্যাফোডিল, ড্যাফোডিল ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটি কালচারাল ক্লাব, ড্যাফোডিল প্রখম আলো বন্ধুসভা, ড্যাফোডিল ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটি ফিল্ম সোসাইটি সহ প্রতিটি ক্লাব তাদের নিজ নিজ দায়িত্ব ভাগ করে নিয়েছে বলে জানা যায়।

বিশ্ববিদ্যালয়ের স্টুডেন্টস অ‍্যাফেয়ার্সের ডিরেক্টর সৈয়দ মিজানুর রহমান রাজু ঢাকা নিউজ৭১কে জানান, সামার ফেস্ট বিশ্ববিদ্যালয়ের একটি সংস্কৃতি, যা শিক্ষার্থীদের ক্রিয়াকলাপে আরও সাহসিকতা ও উৎসাহিত প্রদান করবে। এই ফেস্টে প্রচুর ক্রিয়াকলাপ অন্তর্ভুক্ত রয়েছে, যেখানে বিশ্ববিদ্যালয় ক্লাবগুলো প্রত্যক্ষ নেতৃত্ব দিবে এবং শিক্ষার্থীদের রঙিন ছাতাতে সঞ্চালনের জন্য একটি বড় প্ল্যাটফর্ম খুলে দিবে। 

তিনি বলেন, এছাড়াও আমরা একটি অনলাইন প্ল্যাটফর্মের মাধ্যমে ইভেন্টটি আয়োজন করতে যাচ্ছি যেখানে শিক্ষার্থীরা একটি অনলাইন প্ল্যাটফর্মের মাধ্যমে প্রোগ্রামটিতে সমস্ত ধরণের এক্সেস পাবে। এই উৎসবে অ্যাপ্লিকেশন, অংশগ্রহণ, অডিশন, ইভেন্টস ইত্যাদির মতো সমস্ত ধরণের ক্রিয়াকলাপ যা অনলাইনে সংগঠিত হবে।

উৎসব নিয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের থিয়েটার দলের সভাপতি ইলিয়াস নবী ফয়সাল বলেন, ‘বর্তমান পরিস্থিতিতে সবার সঙ্গে সবার যোগাযোগ বৈকল্য তৈরি হয়েছে, তাই এই সামার ফেস্টের মাধ্যমে সাংস্কৃতিক কর্ম বা ব্যতিক্রমী পরিবেশনার মাধ্যমে ডিজিটাল প্ল্যাটফর্মকে ব্যবহার করে একটু স্বস্তি আনতে অভিনব এ ইভেন্টটির আয়োজন করছে বিশ্ববিদ্যালয়। এতে করে ঘরে থেকেও সকলে পারস্পরিক যোগাযোগ স্থাপন ও সাংস্কৃতিক পরিবেশনা আদান প্রদান করে মানসিক তৃপ্তি পাবে বলে আমি বিশ্বাস করি।’

ড্যাফোডিল ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটির রিয়েল স্টেট এ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি শাহীদুজ্জামান খান শাহী ঢাকা নিউজ৭১কে বলেন, ‘আমি মনে করি বিশ্ববিদ্যালয় পড়ুয়া একজন শিক্ষার্থীর স্বভাবতই  এই সময়ে ক্যাম্পাসের প্রতি একটা অন্য রকম ভালবাসা কাজ করে। বর্তমানে করোনা পরিস্থিতির স্বীকার হয়ে তারা অনেকেই তাদের প্রাণের ক্যাম্পাসে যেতে না পারার অভাব অনুভব করছে। এই সময়ে এসে বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষের নেয়া এই সময় উপযোগী সিদ্ধান্ত দারুন কিছু মুহূর্ত উপহার দিতে যাচ্ছে।’

ড্যাফোডিল ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটি ফিল্ম সোসাইটির প্রেসিডেন্ট সায়েম চৌধুরী আয়োজন সম্পর্কে বলেন, আমরা আশাবাদি যে প্রোগ্রামটি আমাদের মনের মতো হচ্ছে। আমরা আমাদের ক্লাব থেকে ফিল্ম কন্টেস্ট করছি, যার মাধ্যমে শিক্ষার্থীরা ঘরে বসে, দৈনন্দিন জিবনের চিত্র তাদের ভিডিও তে তুলে ধরছে। আমাদের কন্টেস্ট এর বিচারক থাকছেন - শ্রদ্ধেয় ফজলুর রহমান বাবু, সহানা সাভা, মেজবাউর রহমান সুমন, মাকসুদুল বারি।

অনলাইনে প্রথমবারের মতো এমন আয়োজনে বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের মধ্যে আগ্রহের কমতি নেই। অসংখ্য শিক্ষার্থী অনলাইনে রেজিষ্ট্রেশন  করছে বলে জানা যায়। সম্পূর্ণ আয়োজনটি অনলাইনে হওয়াতে নতুন অভিজ্ঞতার অপেক্ষা বিশ্ববিদ্যালয়ের কয়েক হাজার শিক্ষার্থী।

মন্তব্য লিখুন :