বসন্ত ও ভালোবাসাতে সিক্ত আজকের এই দিন

একেই তো পহেলা ফাল্গুন, তার উপরে ভালোবাসা দিবস। আজকের দিনটি যেনো ২০২০ সালের মানুষ ভাগ্যক্রমে উপহার হিসেবে পেয়েছে। এই সময় শীতঘুম কাটিয়ে বসন্তে জাগে প্রকৃতি। এই সময় প্রায় সকলের মনে প্রেম জাগে।

আজকের এই দিনটিতে রবি ঠাকুরের একটি গান মনে পড়ে গেল, আহা,আজি এ বসন্তেএত ফুল ফুটে, এত বাশীঁ বাজে, এত পাখি গায়...সখির হৃদয় কুসুম কোমল, কার অনাদরে আজি ঝরে যায়.....এই গান শুনলে প্রাণের মাঝে হাহাকার শুরু হয়ে যায়।প্রণের দোসর যারও আছে তারও হাহাকার শুরু হয়ে যায়।

আসলে এই হাহাকার মানুষের সুন্দরের প্রতি পরিপূর্ণ ভালোবাসার। কারণ মানুষ মাত্রই সুন্দরের পূজারী। আর মানুষ এই সুন্দরের পূর্ণতা কখনই মনের মত পায় না , তার কারণ মানুষ প্রতি মুহূর্তে আরও বেশী সুন্দর হতে চায় ও পেতে চায়। 

বসন্ত প্রকৃতির মাঝে সমস্ত সৌন্দর্য নিয়ে হাজির হয়। এই সৌন্দর্য মনের মাঝে কেমন যেনো এক বেদনা জাগায়। তার কারণ এর সৌন্দর্য খুব বেশী সময় টেকসই নয়।

বসন্ত যেনো মানব জীবনের প্রতীকী রুপ কারণ, বসন্তে প্রস্ফুটিত ফুল দেখে মুগ্ধ হওয়ার  কিছুদিন পর খুব অল্প সময়ের মাঝে ঝরে যায়। ক্ষনস্থায়ী বলেই হয়তো বসন্তের ফুলগুলো এত সুন্দর। বসন্তের মাতাল সমীরণ মানুষের মনকে যেমন করে দোলা দেয় আর কোন ঋতুই হয়তো মানুষের মনকে এতটা কাতর করে না। বসন্ত আর ভালোবাসা শব্দটি কেমন যেনো ওতপ্রোতভাবে একে অপরের সাথে জড়িত।

যেমন আমরা কাউকে ফুরফুরা মনে চলতে দেখলেই বলি, ‘কী হৃদয়ে বসন্ত এসে গেছে/বসন্তের বাতাস লাগছে মনে’! ঊসন্ত কে যৌবনকালের সাথেও তুলনা করা হয়। বসন্ত আজ জাগ্রত দ্বারে দ্বারে। তাই বসন্তকে আমরা ঋতুরাজ বলি, এ যেনো যৌবনের প্রতিচ্ছবি আর যৌবনই ভালোবাসার শ্রেষ্ঠ সময়।

ভালোবাসা যে আসলে কী জিনিস তার বিষয়ে সঠিক সংঙ্গা দেওয়া আমার মতো ছোট মস্তিস্কের মানুষের মাধ্যমে সম্ভব নয়। তবে  আমার মতে, ভালোবাসা শুধু একটা শব্দ নয় এটি হচ্ছে কিছু নির্দিষ্ট দ্বায়িত্ব ও কর্তব্য।

রবীন্দ্রনাথ বলেছেন, সখি ভালোবাসা কারে কয়/সে কী কেবল যাতনাময়? এর কোনো উত্তর আছে আপনার কাছে?

লেখকঃ-
মোঃ ইমামুল এহসান প্লুটো

মন্তব্য লিখুন :


আরও পড়ুন