দক্ষিণের স্বর্গ সেন্টমার্টিন তীরে ‘হাবিপ্রবি’ সমাজবিজ্ঞান বিভাগের শিক্ষার্থীরা

নীল আকাশ আর সমুদ্রের নীলজলরাশি চুপি চুপি ডাক দিয়ে যায় যান্ত্রিক ক্লান্তকে অবসান ঘটিয়ে প্রশান্তির দরজায়। মধ্যরাতের শীতল স্নিগ্ধ হাওয়া আর নীলজলের কমল শব্দে মনকে সতেজ করার প্রাকৃতিক চিকিৎসালয় হচ্ছে দক্ষিণের স্বর্গ সেন্টমার্টিন।

এমনই অনুভূতি ব্যক্ত করেছেন হাজী মোহাম্মদ দানেশ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের (হাবিপ্রবি) সমাজবিজ্ঞান বিভাগের প্রথম ব্যাচের শিক্ষার্থীরা। 

সকাল ৯ টা থেকে বিকেল ৫ টা পর্যন্ত ক্লাস, অ্যাসাইনমেন্ট, প্রেজেন্টেশন, ক্লাস টেস্ট, মিড সেমিস্টার এবং সাপ্তাহিক ছুটির দিনেও গবেষণাসহ গুরুত্বপূর্ণ বিভিন্ন একাডেমিক কার্য সম্পাদন করতে করতে ক্লান্ত হয়ে মন উঁকি দেয় কোন প্রাকৃতিক সৌন্দর্যের দিকে। সেই খোঁজে সাময়িক স্বস্তির নেশায় ভিন্ন ধারায় হাজী মোহাম্মদ দানেশ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের (হাবিপ্রবি) সমাজবিজ্ঞান বিভাগের ১ম ব্যাচের শিক্ষার্থীরা পাড়ি জমায় দক্ষিণের স্বর্গ সেন্টমার্টিনে।

দেশের একমাত্র প্রবাল দ্বীপটি অগভীর দীর্ঘ সমুদ্রতট, সামুদ্রিক প্রবাল, সমুদ্রের ঢেউয়ের ছন্দ, দখিনা হাওয়া, সারি সারি নারিকেল গাছ দেখে মনে হবে আপনাকে সবুজ-গালিচার সংবর্ধনা দেওয়ার জন্য নারিকেল গাছ গুলো সারিবদ্ধভাবে দাঁড়িয়ে আছে। হয়তো তাই এর আরেক জনপ্রিয় নাম নারিকেল জিনজিরা।

সেন্টমার্টিনের উত্তর, দক্ষিণ, মধ্য পাড়া ও গলাচিপা অঞ্চল ঘুরে দুপুরে সমুদ্রে স্নান শেষে বিকেলে সাইকেলিং এ মেতে উঠেন শিক্ষার্থীরা।

ভ্রমণপিপাসু শিক্ষার্থীরা জানান, সেন্টমার্টিনের উত্তর, দক্ষিণ, মধ্য পাড়া ও গলাচিপা অঞ্চল গুলোতে ঘুরেছি এবং স্থানীয় এলাকাবাসীদের সাথে কথা বলেছি। স্থানীয় তথ্য মতে পর্যটন অঞ্চল হলেও এখানে তেমন উন্নয়ন হয়নি।স্থানীয় বসবাসরত মানুষের জীবন-জীবিকা উন্নয়নে পদক্ষেপ অনেক কম

সমাজবিজ্ঞান বিভাগের শিক্ষার্থী হিসেবে আমরা চাই পর্যটন শিল্পের যেমন উন্নয়ন হচ্ছে তার চেয়ে স্থানীয় এলাকাবাসীর জীবন-মান উন্নয়নে স্থানীয় প্রশাসন সহ সরকারের যুগোপযোগী প্রকল্প প্রনয়ণ করা জরুরি। 

তাঁরা আরও বলেন,বাংলাদেশের সম্ভাবনাময় অঞ্চল হচ্ছে সেন্টমার্টিন। দেশিও পর্যটক সহ বিদেশি পর্যটকদের সংখ্যা বৃদ্ধি পাচ্ছে। পর্যটকদের জন্য যেমন নিরাপত্তা জোরদার করা জরুরি তেমনি পর্যটকদের চাহিদা অনুযায়ি ফলজ সহ মানসম্মত খাবারের নিশ্চয়তা করার লক্ষ্যে স্থানীয় জমিতে পারিবারিক ছাড়াও বাণিজ্যিক ভাবে তরমুজ ,মাকই-ভুট্টা, নারিকেলসহ শাক-সবজি উৎপাদন করাও জরুরি। 

আজিজুর রহমান 

দপ্তর সম্পাদক, হাবিপ্রবি সাংবাদিক সমিতি

মন্তব্য লিখুন :