বাগেরহাটে

নৌকা প্রার্থীর ভয়ে এলাকা ছাড়া অর্ধশতাধিক লোক

বাগেরহাটে মোরেলগঞ্জে পুটিখালী ইউনিয়নের আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী আঃ রাজ্জাক ও তার সমর্থকদের ভয়ে পালিয়ে বেড়াচ্ছে এলাকার অর্ধশতাধিক লোক। আঃ রাজ্জাকের সমর্থকদের মারধর ও হুমকী-ধামকীতে এলাকায় অস্থিতিশীল পরিবেশ সৃষ্টি হয়েছে। 

শনিবার (২০ মার্চ) দুপুরে বাগেরহাট প্রেসক্লাবে সংবাদ সম্মেলনে এই অভিযোগ করেন পুটিখালী গ্রামের বাদশা মল্লিকের ছেলে মোঃ মাসুদ রানা।

লিখিত বক্তব্যে মাসুদ রানা বলেন, আওয়ামী লীগের মনোনয়ন নিশ্চিত হওয়ার আগে পুটিখালী ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি মাওলানা আব্দুল কাদের ইউনিয়ন চেয়ারম্যান পদে নৌকার প্রার্থী হলে ভাল হয় কয়েক জায়গায় এমন কথা বলেছি। ১৩ মার্চ চেয়ারম্যান পদে আঃ রাজ্জাক আওয়ামী লীগের দলীয় মনোনয়ন পান। ওই দিন রাতেই আঃ রাজ্জাকের নির্দেষে তার কিছু উশৃংখল সমর্থকরা আমাকে হত্যার উদ্দেশ্যে আমার বাড়িতে আসে। আমি টের পেয়ে পিছনের দরজা দিয়ে বের হয়ে যাই। আমাকে না পেয়ে ওরা আমার বাড়িঘর ভাংচুর করে। নির্বাচনের আগে এলাকায় পেলে আমাকে জীবনে মেরে ফেলবে বলে হুমকী দিয়ে যায়। 

তিনি আরও বলেন, শুধু আমি নয় এলাকার রফিকুল ইসলাম শান্ত, নাহিদ হাসান, রাশেদুল ইসলাম আসাদ, আঃ মোতালেব শেখ, মোঃ জাহাঙ্গীর শেখ, আলামিন মল্লিক, আসাদ শেখসহ অর্ধ শতাধিক লোক আঃ রাজ্জাক ও তার বাহিনীদের ভয়ে পালিয়ে বেড়াচ্ছে। আমরাও আওয়ামী লীগ করি। প্রধানমন্ত্রীকে ভালবাসি। আমরা এলাকায় শান্তিতে বসবাসের নিশ্চয়তা চাই বলে কান্নায় ভেঙ্গে পড়েন মাসুদ রানা।

পুটিখালী ইউনিয়নের আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী আঃ রাজ্জাক বলেন, আমি সব সময় এলাকার মানুষের সুখে দুখে পাশে থাকি। আগেও যেমন এলাকা শান্ত ছিল, এখনও আছে। আমি বা আমার লোকেরা পুটিখালি ইউনিয়নের কারও উপর হামলা করেনি। কাউকে হুমকীও দেয়নি। দলীয় মনোনয়ন পাওয়ায় কিছু লোক ক্ষিপ্ত হয়ে আমাকে বিতর্কিত করার জন্য এসব প্রপাগান্ডা ছড়াচ্ছে।


মন্তব্য লিখুন :