কুড়িগ্রামে

ছাত্রলীগ নেতার হাত কর্তনের ঘটনায় পরিবারের সংবাদ সম্মেলন

কুড়িগ্রাম মজিদা কলেজের প্রভাষক ও সাবেক ছাত্রলীগ নেতা আতাউর রহমান মিন্টুর উপর সন্ত্রাসী হামলার প্রতিবাদ ও ঘটনার সাথে জড়িত মামলার আসামীদের দ্রুত গ্রেফতারের দাবিতে সংবাদ সম্মেলন করেছে তার পরিবার।

শনিবার (২০ মার্চ) দুপুরে সদর উপজেলার কাঠালবাড়ী বাজার সংলগ্ন মিন্টুর নিজ বাড়ীতে এ সংবাদ সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়। এসময় বক্তব্য রাখেন মিন্টুর পিতা আলতাফ হোসেন, স্ত্রী নওরিন আক্তার, মা ফাতেমা বেগম, ভাই আশরাফুজ্জামান রাজু ও আফতাবুজ্জামান সাজু সহ পরিবারের অন্যান্য সদস্যরা। 

সংবাদ সম্মেলনে মিন্টুর পিতা আলতাফ হোসেন বলেন, সন্ত্রাসীরা দীর্ঘদিন ধরে আমার ছেলে আতাউর রহমান মিন্টুর নিকট চাঁদা দাবী করে আসছিল। পাশাপাশি তার পরিবারের সদস্যদের নানাভাবে হুমকি দিয়ে আসছিল। এরই এক পর্যায়ে ১৬ মার্চ দুপুরে মিন্টু রাজারহাট উপজেলার ছিনাই ইউনিয়নের পালপাড়ার সড়ক দিয়ে যাওয়ার সময় সন্ত্রাসীরা পরিকল্পিতভাবে হত্যার উদ্দেশ্যে আমার ছেলের উপর হামলা চালিয়ে ডান হাতের কবজি কর্তনসহ বাম হাত ও দুই পায়ে কুপিয়ে গুরুতর জখম করে। সে বর্তমানে ঢাকায় গুরুতর অবস্থায় চিকিৎসাধীন রয়েছে। 

তিনি আরও জানান, এ ঘটনায় রাজারহাট থানায় ১১ জনের নাম উল্লেখ করে মামলার পর ৪ দিনেও এখনও কাউকে গ্রেফতার করতে পারেনি পুলিশ। আসামীদের দ্রুত গ্রেফতার করে ন্যায় বিচারের দাবী জানান তিনি। 

এছাড়াও সংবাদ সম্মেলনে আতাউর রহমান মিন্টুর স্ত্রী নওরিন আক্তার ও মা আম্বিয়া বেগম এ ঘটনার সাথে জড়িতদের গ্রেফতার করে সুষ্ঠ বিচারের দাবিতে প্রধানমন্ত্রীর সুদৃষ্টি কামনা করেছেন।

উল্লেখ্য, গত ১৬ মার্চ দুপুরে জেলার রাজারহাট উপজেলার ছিনাই ইউনিয়নের পালপাড়া এলাকায় সংঘবদ্ধ সন্ত্রাসী হামলার শিকার হন সাবেক ছাত্রলীগের নেতা মিন্টু। এতে তার ডান হাতের কবজি শরীর থেকে বিচ্ছিন্ন হয়ে যায় এবং অপর হাত ও দুই পা গুরুতর জখম হয়। বর্তমানে মিন্টু ঢাকার জাতীয় অর্থোপেডিক হাসপাতাল ও পুনর্বাসন প্রতিষ্ঠানে (পঙ্গু হাসপাতাল) চিকিৎসাধীন রয়েছেন। এ ঘটনায় গত ১৮ মার্চ মিন্টুর বাবা আলতাফ হোসেন বাদী হয়ে রাজারহাট থানায় সদর উপজেলার কাঁঠালবাড়ী ইউনিয়নের বাসিন্দা মেহেদী হাসান বাঁধনসহ ১১ জনের নাম উল্লেখসহ আরও ৩-৪জন অজ্ঞাত আসামী করে চাঁদাবাজি মামলা দায়ের করেন। মামলায় উল্লেখ করা হয় ৫ লাখ টাকা চাঁদা দাবী করে না পেয়ে তার হাতের কব্জি কর্তন করেছে বাঁধনসহ তার লোকজন।


মন্তব্য লিখুন :