ঠাকুরগাঁওয়ে অগ্নিকাণ্ডে ক্ষতিগ্রস্তদের পাশে প্রশাসন

ঠাকুরগাঁও সদর উপজেলার বড়গাঁও ইউনিয়নে আগুনে ঘরবাড়ি পুড়ে ক্ষতিগ্রস্ত ৯ পরিবারের মধ্যে শুকনো খাবার ও কম্বল বিতরণ করেছে প্রশাসন।

সোমবার(৫ এপ্রিল) সকালে ঠাকুরগাঁও সদর উপজেলা নির্বাহী অফিসার আব্দুল্লাহ আল মামুন এ তথ্য নিশ্চিত করেন।

অগ্নিকাণ্ড নিয়ে ক্ষতিগ্রস্ত পরিবারের স্বজনেরা বলেন, রাতে খাবার পরে সকলে ঘুমিয়ে পড়লে হঠাৎ করেই আব্দুল হাইয়ের বাসার রান্নাঘর থেকে আগুন লাগে এবং মুহূর্তের মধ্যে আগুন ছড়িয়ে যায় আশেপাশের বাড়িতে। ফায়ার সার্ভিসকে খবর দেয়া হলে তারা এসে আগুন নিয়ন্ত্রণে আনে। এর মধ্যেই সবকিছু পুড়ে ছাই হয়ে যায়। এতে প্রায় লক্ষাধিক টাকার ক্ষতি হয়েছে আমাদের।

ক্ষতিগ্রস্ত শহিদুল ইসলাম বলেন, রাতে চাচাতো ভাই আব্দুল হাইয়ের বাসার রান্নাঘর থেকে আগুন লাগে। খুব দ্রুত আগুন ছড়িয়ে যায় আমাদের সকলের বাড়িতে। আগুনে ঘরে থাকা প্রতিটি জিনিস পুড়ে ছাই হয়ে যায়।  শুধু গরু-ছাগল ছাড়া কোন কিছু বাঁচানো আমাদের পক্ষে সম্ভব হয়নি। আজ আমরা সকলে খোলা আকাশের নিচে বসে আছি। একেবারে নি:স্ব। আগুনের পুড়ে আমাদের প্রায় ৮ থেকে ৯ লাখ টাকার ক্ষতি হয়েছে।

বড়গাঁও ইউনিয়নের চেয়ারম্যান প্রভাত কুমার সিং জানান, ঘটানাটি শোনার পরে সেখানে গিয়ে ক্ষতিগ্রস্তদের নামের তালিক নেয়া হয়েছে। ইতিমধ্যে সেই তালিকা উপজেলা নির্বাহী অফিসারের বরাবরে দেয়া হয়েছে।

ঠাকুরগাঁও সদর উপজেলার নির্বাহী অফিসার আব্দুল্লাহ মামুন বলেন, ইতিমধ্যে ক্ষতিগ্রস্তদের মাঝে কিছু শুকনো খাবার দেয়া হয়েছে। এছাড়াও ক্ষতিগ্রস্তদের মাঝে আর্থিক সহযোগিতা করা হবে বলেও জানান তিনি।

উল্লেখ্য রবিবার (৪ এপ্রিল) রাতে ঠাকুরগাঁওয়ের সদর উপজেলার বড়গাঁও ইউনিয়নের চমেশ্বরী গ্রামে অগ্নিকাণ্ডে পুড়ে ছাই  হয়ে যায় ২২টি ঘরবাড়ি।

মন্তব্য লিখুন :