ভোলায় আবারো ডায়রিয়ার প্রাদুর্ভাব

ভোলায় আবারো ডায়রিয়ার প্রাদুর্ভাব দেখা দিয়েছে। গত ২৪ ঘণ্টায় জেলায় নতুন করে আরও ৩৪৫ জন রোগী ভর্তি হয়েছে। তাদের মধ্যে ভোলা সদর হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন ১৫২ জন।

গতকাল বিকাল পর্যন্ত সদর হাসপাতালের ডায়রিয়া ওয়ার্ডে ধারণক্ষমতার কয়েকগুণ বেশী ডায়রিয়া রোগী চিকিৎসাধীন রয়েছে।

এছাড়াও দৌলতখানে ৩১ জন, বোরহানউদ্দিনে ৬২ জন, লালমোহনে ৩১ জন, চরফ্যাশনে ৬০ জন, তজুমদ্দিনে ১৮ জন ও মনপুরা হাসপাতালে ১৮ জন ভর্তি হয়েছেন।

ভোলা সদর হাসপাতালে ডায়রিয়া ওয়ার্ডে বেড সংকট থাকায় মেঝেতে চিকিৎসা নিতে হচ্ছে অধিকাংশ রোগীর। হঠাৎ করেই ডায়রিয়া রোগীর চাপ বেড়ে যাওয়ায় তাদের চিকিৎসা দিতে গিয়ে হিমশিম খাচ্ছেন চিকিৎসক-নার্সরা। আক্রান্তদের মধ্যে নারী ও শিশুর সংখ্যাই বেশি রয়েছেন।

আবহাওয়ার পরিবর্তন ও গরমের প্রকোপ বেড়ে যাওয়ায় ডায়রিয়া আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা বেড়ে গেছে বলে জানিয়েছেন ভোলার সিভিল সার্জন ডা. সৈয়দ রেজাউল ইসলাম। 

তিনি জানান, গত কয়েকদিন ধরেই হাসপাতালে ডায়রিয়া রোগীদের চাপ। আমাদের ডাক্তার ও নার্সরা রোগীদের চিকিৎসা দিচ্ছেন।

ভোলা সদর হাসপাতালে সূত্রে জানা যায়, ডায়রিয়া আক্রান্ত রোগীদের চাপ। হাসপাতালে প্রতিদিন গড়ে ১০০ জনের বেশি জায়রিয়া রোগী ভর্তি হচ্ছেন। এদের মধ্যে নারী, শিশু সংখ্যাই বেশি। শয্যা কম থাকায় রোগীদের মেঝেতে চিকিৎসা নিতে হচ্ছে।

ডায়রিয়া আক্রান্ত রোগীর স্বজনরা জানান, ডায়রিয়ার প্রকোপ অনেক বেড়ে গেছে। শিশু থেকে শুরু করে বয়স্করাও ডায়রিয়া আক্রান্ত হচ্ছেন। হাসপাতালে বেড না থাকায় মেঝেতে শুয়ে চিকিৎসা নিতে হচ্ছে।

ডায়রিয়া ওয়ার্ডে দায়িত্বরত নার্সরা জানান, ভোলা হাসপাতালের ডায়রিয়া ওয়ার্ডে রোগীর সংখ্যা বাড়ছে। প্রতিদিন গড়ে ৯০ থেকে ১০০ জন রোগী ভর্তি হচ্ছে। রোগীদের চিকিৎসা দিতে গিয়ে আমাদের হিমশিম খেতে হচ্ছে, তারপরেও আমরা সেবা দিয়ে যাচ্ছি।

মন্তব্য লিখুন :


আরও পড়ুন