সেহরিতে ছোট মাছ দিয়ে খেতে দেওয়ায় যুবকের আত্মহত্যা

বগুড়ার ধুনট উপজেলার পল্লী এলাকায় রমজানের রোজার সেহরিতে ছোট মাছের তরকারি নিয়ে পিতা পুত্রের তর্কের জেরে পুত্র জোনাক আলী (১৯) নামে এক কলেজছাত্র পিতার উপর অভিমান করে গলায় ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করেছেন।

বৃহস্পতিবার (২২ এপ্রিল) দিবাগত রাতে উপজেলার শিমুল গ্রামের জোনাক আলী রমজানের রোজার সেহরি খেতে বসে। তার মা তাকে ছোট মাছের তরকারি দিয়ে ভাত খেতে দেয়। কিন্ত জোনাক আলী ছোট মাছের তরকারি দিয়ে ভাত খাবে না বলে তার মা-বাবাকে জানায়। তার বাবা ক্ষুব্ধ হয়ে জোনাক আলীকে বকাবকি করে। এ নিয়ে বাবা ও ছেলের মাঝে তর্কবিতর্কের ঘটনা ঘটে। 

সেহরি খেয়ে বাড়ির সবাই ঘুমিয়ে পড়লে জোনাক আলী বাড়ির পাশে বাঁশঝারে গিয়ে গাছের ডালের সঙ্গে দড়ি দিয়ে ফাঁস লাগিয়ে আত্মহত্যা করে। ভোরে বাড়ির পাশে বাশঝাড়ের  ভেতর গাছের ডালের সঙ্গে গলায় ফাঁস লাগানো অবস্থায় জোনাক আলীর ঝুলন্ত লাশ দেখে থানায় খবর দেন তার স্বজনরা। খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিক্যাল কলেজ (শজিমেক) হাসপাতাল মর্গে প্রেরণ করে এবং থানায় একটি অপমৃত্যু (ইউডি) মামলা রের্কড করা রহয়েছে।

নিহত জোনাক আলী জোড় শিমুল গ্রামের আফজাল হোসেন মন্ডলের ছেলে। জোনাক আলী চিকাশি টেকনিক্যাল অ্যান্ড বিএম কলেজ থেকে এ বছর এইচএসসি পাশ করে। শুক্রবার দুপুরে পুলিশ লাশ উদ্ধার করে মর্গে প্রেরণ করেছে। 

ধুনট থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) কৃপা বালা সিন্ধু এ প্রতিবেদক-কে বলেন, খবর পেয়ে ঘটনাস্থল থেকে ঝুলন্ত অবস্থায় জোনাক আলীর লাশ উদ্ধার করে মর্গে পাঠানো হয়েছে। পারিবারিক কলহের কারণে এই আত্মহত্যার ঘটনা ঘটেছে। থানায় একটি অপমৃত্যু (ইউডি) মামলা রেকর্ড করা হয়েছে। 


মন্তব্য লিখুন :