লকডাউনে থমকে গেছে চর্মকারদের জীবন-জীবিকা

মহামারি করোনাভাইরাসের কারণে লকডাউনে থমকে দাড়িয়েছে চর্মকারদের (মুচি) জীবন-জীবিকা। লকডাউনের কারণে লোকজন ঘর থেকে তেমন বের না হওয়ায় কালিগঞ্জ উপজেলার প্রায় ৩০-৪০ জন চর্মকার কর্মহীন হয়ে পড়েছে।

করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হওয়ার ভয়কে উপেক্ষা করে ফুটপাথে অন্যের জুতা সেলাই করতে বসলেও কাজ না থাকায় তাদের পরিবারে দেখা দিয়েছে খাদ্যসংকট। সরকারি বা ব্যক্তি উদ্যোগে এখনও কোন সহযোগিতা না পাওয়ায় চর্মকাররা দিশেহারা হয়ে পড়েছে।

কালিগঞ্জ উপজেলার সদর, ফুলতলার মোড় ডাক বাংলা মোড়, বাস স্ট্যান্ড ও উপজেলার বিভিন্ন স্থানে ফুটপাথে বসা চর্মকারদের সাথে কথা বলে জানা গেছে তাদের এই দুঃখ ও দুর্দশার কথা।

উপজেলার ফুলতলা মোড়ের ফুটপাথে দীর্ঘদিন ধরে চর্মকার পেশার সাথে জড়িত সনকা গ্রামের শৈলেন্দ্র দাশ (৫২) বলেন, তার পরিবারে ৫ জন সদস্য। সকাল থেকে এখনও পর্যন্ত কেউ তার কাছে জুতা সেলাই করতে আসেনি। লকডাউনে আয় রোজগার একপ্রকার বন্ধ। অনেক কষ্টে দিন যাচ্ছে। এখনো পর্যন্ত কোনো প্রকার সহযোগিতা পায়নি। লকডাউনে ঘরে বসে থাকলে ছেলে- ময়ে, বাবা-মা এর মুখে যে এক মুঠো অন্ন তুলে দেবো তার কোন উপায় নাই। দিন আনা দিন খাওয়া এমনভাবেই আমার সংসার চলে, কিন্তু লকডাউন এর কারণে কোনো কাজ না করতে পেরে বউ বাচ্চা মা-বাবা পরিবারকে নিয়ে খুব মানবেতর জীবনযাপন করছি।

মন্তব্য লিখুন :