কালিগঞ্জের রিভার ড্রাইভ ইকো পার্কে বিপাকে দর্শনার্থীরা: সক্রিয় প্রতারক চক্র

সাতক্ষীরার কালিগঞ্জের রিভার ড্রাইভ ইকো পার্কে ঘুরতে এসে অনেকেই পড়েছেন বিপাকে।

পার্কে ঘুরতে আসা দর্শনার্থীদের ব্লাকমেইলের মাধ্যমে অনেকের টাকা মোবাইল দামি সব জিনিসপত্র ছিনিয়ে নিচ্ছে একটি সংঘবদ্ধ ছিনতাইকারী চক্রের সদস্যরা অভিযোগ ভুক্তভোগীদের। প্রতারক ও ছিনতাইকারী চক্রের কারণে পর্যটনের জন্য সম্ভাবনায় এই অঞ্চলটি নিয়ে সাধারণ মানুষের মাঝে ক্ষোভের সৃষ্টি হচ্ছে।

গত রবিবার (১৬ মে) কালিগঞ্জ বসন্তপুর এলাকার ছদ্দনাম (ছনিয়া) বর্তমান ঢাকার তিতুমির কলেজের অনার্স তৃতীয় বর্ষের ছাত্রী ও তার দুইজন বান্ধবীসহ এক ভাইকে নিয়ে ঘুরতে গেলে  আটক করে ছিনতাইকারী চক্রের সদস্যরা।

ঐ চক্রের মূল হোতা উপজলার মথুরেশপুর ইউনিয়নের হাড়দ্দহা গ্রামের মোকছেদ আলী গাজীর ছেলে মাছিদুল ইসলাম ওরফ মাছি।

অসামাজিক কার্যকলাপের অভিযোগে এনে সাবিনাসহ তাদের ৪ জনকে আটক করে। এসময় মাছি ও তার বাহিনী শারীরিক ভাবে নির্যাতন করে তাদেরকে। মোটা অংকের টাকা দাবির পাশাপাশি তাদের ব্যবহৃত মোবাইল  ছিনিয়ে নেওয়ার চেষ্টা করে ওই বাহিনী। তবে বিজিবি সদস্যদের উপস্থিতিতে কোন প্রকার ক্ষয়-ক্ষতি ছাড়া মাছি বাহিনীর হাত থেকে মুক্তি পায় তারা।

গত বুধবার (১৯  মে) তিতুমীর কলেজের ছদ্দনাম (বিলকিস) নামের ওই ছাত্রী নিজের ব্যক্তিগত ফেসবুকে অভিযুক্ত মাছিদুল ইসলামের একটি ছবি দিয়ে সবাইকে সতর্ক করে একাটি স্ট্যাটাস দেন। সেখানে ওই কলেজ ছাত্রী লিখেছেন, কালিগঞ্জ বসন্তপুর বর্ডারের ছেলেরা মেয়েরা ভাইবোন একসাথে ঘুরতে গেলে অবশ্যই সাবধানতা অবলম্বন করবেন। কারণ ছবিতে যে পশুকে দেখা যাচ্ছে এই পশু যারে তারে ধরে মোবাইল, মানিব্যাগ নিয়ে নিচ্ছে। নিজের এলাকাতে এমনটা হবে ভাবতে পারিনি। টাকা না দিতে রাজি হলে মারধর করছে। এমনকি মেয়েদের হাতধরেও টানাটানি করছে। তাই আপনাদের মা বোনেরা তাদের নিজেদের এলাকাতে ও সেভ না। এজন্য এদের থেকে দূরে থাকুন। ভালো মানুষের মুখোশ পরে আর কতদিন যাবে।

ভুক্তভোগী ওই কলেজ ছাত্রীর বড় ভাই বলেন, গত ১৬ তারিখে আমাদের বাড়িতে একটি অনুষ্ঠান হয়েছিল। ওই অনুষ্ঠানের অতিথিদের মধ্যে থেকে আমার বোনসহ তিনটি মেয়ে ও একটি ছেলে আমাদের গ্রামে অবস্থিত ভারত বাংলাদেশ সীমান্তবর্তী ইকোপার্কে গিয়েছিল। সকাল সাড়ে ১০ টার দিকে মাছিদুল ইসলাম ওরফ মাছি তাদেরকে আটকিয়ে মোবাইলসহ টাকা ছিনিয়ে নেওয়ার চেষ্টা করে। আমার কলেজ পড়ুয়া বোনসহ তার সাথে থাকা অতিথিরা দিতে না চাইলে তাদেরকে মারধর করে মাছিসহ তার সাথে থাকা ছিনতাইকারীরা।

এব্যাপারে অভিযুক্ত মাছিদুল ইসলামের কাছে জানতে চাইলে তিনি বলেন, গত ১৬ তারিখ সকাল সাড়ে ১০ টার দিকে একটি ছেলে ও একটি মেয়ে রাস্তার পাশে খারাপ কাজ করছিলো। অন্য দুইজন একটু দূরে দাড়িয়ে ছিল। আমি দেখতে পেয়ে তাদেরকে বাঁধা দিই। ওই সময় আমার উপর ক্ষিপ্ত হয়ে ছেলেটি আমাকে আঘাত করে আমিও তাকে আঘাত করি। তবে মেয়েদের মারধরের বিষয় অস্বীকার করেন তিনি।  

সকাল সাড়ে ১০ টার দিকে রাস্তার উপর কিভাবে খারাপ কাজ হয়? সাংবাদিকদের এমন প্রশ্নের উত্তরে মাছিদুল ইসলাম বলেন, আপনারা যদি দেখতে চান তাহলে প্রতিদিন সকালে ওই রাস্তার পাশে অবস্থিত ভাটার ওই দিকে যান শতশত ছেলে-মেয়েদের অপকর্ম  দেখত পাবেন। তবে খোঁজ  নিয়ে তার কথার কোন সত্যতা পাওয়া যায়নি।

এদিকে নাম প্রকাশ না করার শর্তে একাধিক ব্যক্তি জানান, প্রতিনিয়ত এই পার্কে বেড়াতে আসা দর্শনার্থীদের ব্লাকমেইল, ভয়-ভীতি দেখিয়ে কয়কটি চক্র হাতিয়ে নিচ্ছে মোটা অংকের টাকা। কেড়ে নেওয়া হচ্ছে তাদের মোবাইল ফোন।

তাদের কাজ সারাদিন পার্কের আশপাশে ঘুরে বেড়ানো আর মানুষদেরকে ব্লাকমেইল করে টাকা উপার্জন করায় তাদের মুল টার্গেট।

জানা গেছে রাজা প্রতাপাদিত্য’র কাকা বসন্ত রায় এর স্মৃতি বিজড়িত এই অঞ্চল। এখানে এক সময় নৌ-বন্দরও ছিলো। সম্প্রতি গণ্যমাধ্যমে এই অঞ্চল দিয়ে একাধিক প্রতিবেদন প্রকাশিত হয়। এরপর জেলা প্রশাসক এসএম মোস্তফা কামালের সহযোগিতায় এই এলাকার ৩ একর জমির উপর নির্মিত হয় রিভার ড্রাইভ ইকো পার্ক। যার সৌন্দর্য বৃদ্ধির কাজ চলমান। 

প্রতিদিন এই পার্কে বিভিন্ন স্থানের  মানুষ একটু বিনোদনের জন্য আসেন। বিশেষ করে বিকেল বেলা প্রচুর দর্শনার্থী দেখা যায় এই অঞ্চলে। কয়েকটি সংঘবদ্ধ ছিনতাই চক্রের সদস্যরা সুযোগটিক কাজে লাগিয়ে একের পর এক অপকর্ম চালিয়ে যাচ্ছে। 

কালিগঞ্জ থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মোহাম্মদ গোলাম মোস্তফা জানান, আপনাদের মাধ্যমে বিষয়টি এই মাত্র শুনলাম। আমার কাছে কেউ কোন অভিযাগ দেয়নি। বিষয়টি খতিয়ে দেখে ঘটনার সাথে জড়িতদের বিরুদ্ধে অতিদ্রুত আইনানুযায়ী ব্যবস্থা গ্রহণ করবো।

মন্তব্য লিখুন :