উজিরপুরে ইউপি সদস্যের বিরুদ্ধে টাকা আত্মসাতের অভিযোগ

বরিশালের উজিরপুরে এক ব্যবসায়ীর ১লক্ষ ৬০ হাজার টাকা আত্মসাতের অভিযোগ উঠেছে ইউপি সদস্য ফারুক হোসেন হাওলাদারের বিরুদ্ধে।

ভূক্তভোগী সূত্রে জানা যায়, উপজেলার শোলক ইউনিয়নের ধামুরা ১নং ওয়ার্ড ইউপি সদস্য তানভীর আহমেদ ফারুক হোসেন হাওলাদার দেড় বছর পূর্বে ধামুরা বন্দর আল মদিনা ট্রেডার্স এর মালিক মোঃ সিরাজুল ইসলামের কাছ থেকে ভবন নির্মাণের জন্য ১লক্ষ ৬০ হাজার টাকার রড, সিমেন্ট ও বালি এক সপ্তাহের জন্য বাকিতে ক্রয় করেন। এরপর পাওনাকৃত টাকা চাইতে গেলে ইউপি সদস্য ফারুক ক্ষমতার দাপট দেখিয়ে তাল বাহানা শুরু করে। দেড় বছর অতিবাহিত হওয়ার পরেও পাওনা টাকা আদায় করতে পারছে না ব্যবসায়ী সিরাজুল ইসলাম। 

এ নিয়ে স্থানীয় হাসান আলী শরীফ, মুনতাজ উদ্দিন বালী, কালাম খান, জাহাঙ্গীর বিশ্বাসসহ কতিপয় শালিসগণ একাধিকার বৈঠক করেও টাকা আদায় করতে পারছে না। তিনি প্রতিটি শালিক বৈঠক শেষে টাকা দেওয়ার কথা স্বীকার করে সময় ক্ষেপণ করেন। কিন্তু আজ পর্যন্ত একটি টাকাও ব্যবসায়ীকে ফেরত দেয়নি। 

এ ব্যাপারে ভুক্তভোগী সিরাজুল ইসলাম জানান, এক সপ্তাহের কথা বলে ওই প্রতারক ইউপি সদস্য ফারুক হোসেন আমার ব্যবসা প্রতিষ্ঠান থেকে ১ লক্ষ ৬০ হাজার টাকার মালামাল বাকিতে নেয়। কিন্তু দেড় বছর অতিবাহিত হওয়ার পরেও আমাকে কোন টাকা পয়সা দেয়নি। এমনকি পাওনা টাকা চাইতে গেলে উগ্র মেজাজ দেখিয়ে বিভিন্ন ভয়ভীতি ও হুমকি দেয় এবং যেদিন পারি সেদিন টাকা দেওয়া হবে বলে সাব জানিয়ে দেয়। বাকি টাকা আদায় করতে না পারায় ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে নতুন করে মালামাল তুলতে পারছি না। 

স্থানীয় হাসান আলী শরীফ জানান, বিষয়টি নিয়ে শালিস বৈঠক হয়। ১লক্ষ ৬০ হাজার টাকা ইউপি সদস্য ফারুক হোসেনের কাছে ব্যবসায়ী সিরাজুল ইসলাম পায় বলে স্বীকার করে কিন্তু টাকা পরিশোধ না করে সময় ক্ষেপণ করছেন তিনি। এলাকার একাধিক ব্যক্তি অভিযোগ করে বলেন, ফারুক মেম্বর টিউবয়েল বসানোর নামে বিভিন্ন মানুষের কাছ থেকে কোটি টাকা হাতিয়ে নিয়েছে। এ ছাড়াও সে এলাকার সহজ সরল মানুষদের ধোঁকা দিয়ে লক্ষ লক্ষ টাকা হাতিয়ে নিয়েছে। তার বিরুদ্ধে রয়েছে বিভিন্ন দুর্নীতি ও অনিয়মের একাধিক অভিযোগ। ইউপি সদস্যর ক্ষমতার দাপট দেখিয়ে একের পর এক অপরাধের সাথে জড়িত হয়ে পার পেয়ে যাচ্ছে। তার বিরুদ্ধে ফুঁসে উঠেছে এলাকাবাসী। সকল অপরাধমূলক কর্মকাণ্ডের বিচারের প্রার্থনা করছেন এলাকাবাসী।

ইউপি চেয়ারম্যান অধ্যক্ষ কাজী হুমায়ুন কবির জানান, কিছুদিন পূর্বে বিষয়টি আমাকে জানিয়েছিল। ব্যবসায়ীর টাকা আটকে রাখা কারোরই উচিত নয়। অভিযুক্ত ইউপি সদস্য তানভীর আহমেদ ফারুক হোসেন হাওলাদারের কাছে একাধিক বার মুঠোফোনে যোগাযোগের চেষ্টা করলেও তার ফোনটি বন্ধ পাওয়া যায়। অভিযুক্ত ইউপি সদস্য ফারুক হোসেন ধামুরা গ্রামের মৃত কাদের আলী হাওলাদারের ছেলে। ঐ প্রতারক ইউপি সদস্যকে দ্রুত আইনের আওতায় আনার দাবী জানিয়ে প্রশাসনের সুদৃষ্টি কামনা করেন ব্যবসায়ী পরিবার।

মন্তব্য লিখুন :