ট্রলির চাপায় ইউপি সদস্যের চাচা নিহত

ঢাকা-বরিশাল মহাসড়কের উজিরপুরের বামরাইলে ঘাতক ট্রলির চাপায় ইউপি সদস্যের চাচা নিহত হয়েছে, থানায় মামলা দায়ের করা হয়েছে।

রবিবার (৩০ মে) নিহতের ভাতিজা বামরাইল ১নং ওয়ার্ড ইউপি সদস্য আরিফুর রহমান শরীফ বাদী হয়ে ঘাতক ট্রলি চালক দুলাল খলিফার বিরুদ্ধে উজিরপুর মডেল থানায় একটি মামলা দায়ের করেছে।

উল্লেখ্য ২৯ মে রাত ৮ টার দিকে উপজেলার বামরাইল ইউনিয়নের দক্ষিণ মোড়াকাঠী গ্রামের মৃত রজ্জব আলি শরীফের ছেলে ও ইউপি সদস্য আরিফুর রহমান শরীফের চাঁচা বিশিষ্ট সমাজসেবক হাদিউজ্জমান (৫৫), বামরাইল বন্দর থেকে বাড়ী ফেরার উদ্দেশ্যে রওয়ানা হয়ে রাস্তা পারাপার করার সময় বাতিবিহীন ও গতিবিহীন বেপরোয়া একটি ঘাতক ট্রলি তাকে চাঁপা দেয়।

স্থানীয়রা ঘাতক চালক ও ট্রলিটি আটক করে পুলিশের কাছে সোপর্দ করে এবং মুমূর্ষ অবস্থায় গুরুতর আহত শরীফকে উদ্ধার করে উজিরপুর স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত ডাঃ তাকে মৃত্যু বলে ঘোষণা দেয়। ঘাতক চালক দুলাল খলিফা গৌরনদী উপজেলার দক্ষিণ দিয়াশুর গ্রামের মৃত আঃ মালেক খলিফার ছেলে।

এ ব্যাপারে উজিরপুর মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ মোঃ জিয়াউল আহসান জানান, এ ঘটনায় মামলা নেয়া হয়েছে এবং অভিযুক্ত আসামী চালককে বরিশাল আদালতে প্রেরণ করা হয়েছে। তার অনাকাঙ্ক্ষিত মৃত্যুতে এলাকায় শোকের মাতব বইছে। এদিকে বিভিন্ন সামাজিক ও রাজনৈতিক ব্যাক্তিরা নিহতের রুহের মাগফেরাত কামনা করেন এবং শোকাহত পরিবারকে সমবেদনা জানান।

প্রায়ই এভাবে বেপরোয়া যান্ত্রিক চালকরা মানুষকে পিষিয়ে হত্যা করছে। এ মর্মান্তিক সড়ক দুর্ঘটনায় আতঙ্কে বামরাইলবাসী। সড়ক দুর্ঘটনার প্রতিকার স্বরূপ পুলিশের কঠোর নজরদারী ও বিশেষ আইন প্রয়োগের দাবী জানান জনগণ।

রবিবার সকাল ৯ টায় বামরাইল অনাথ বন্ধু মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের মাঠে মরহুমের জানাজা নামাজ অনুষ্ঠিত হয়। এসময় উপস্থিত ছিলেন বামরাইল ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মোঃ ইউসুফ হোসেন হাওলাদার, বীর মুক্তিযোদ্ধা ওয়াদুত সরদার, বিশিষ্ট শিল্পপতি মোঃ আঃ লতিফ শরীফ, বামরাইল বন্দর ব্যবসায়ী কমিটির সভাপতি মোঃ শাহআলম সরদার, সাধারণ সম্পাদক মোঃ মিরাজ ফরাজী, ইউপি সদস্য আরিফুর রহমান শরীফ, আতিকুর রহমান রাড়ী, আব্দুস সালাম সরদারসহ প্রায় ৫ শতাধিক মুসল্লিগন।

জানাজা শেষে তাকে পারিবারিক কবরস্থানে দাফন করা হয়। সড়ক দুর্ঘটনায় আর কাউকে জীবন দিতে না হয় এর দাবী জানিয়ে প্রশাসনের সু-দৃষ্টি কামনা করেন এলাকাবাসী।

মন্তব্য লিখুন :