উজিরপুরের মুক্তিযোদ্ধার লাশ দাফনে বাধা ও হুমকির প্রতিবাদে মানববন্ধন

বরিশালের উজিরপুরে বীর মুক্তিযোদ্ধা মোঃ শাহজাহান সরদারের লাশ দাফনে বাধা ও পরিবারের সদস্যদের জীবন নাশের হুমকি এবং কবর থেকে লাশ উপরে ফেলার হুমকিতে মানববন্ধন ও বিক্ষোভ মিছিল করেছে এলাকাবাসী।

শনিবার (৫ জুন) ঢাকা-বরিশাল মহাসড়কের উজিরপুর উপজেলার বামরাইল বন্দর প্রধান সড়কে বেলা ১১ টায় মানববন্ধন ও বিক্ষোভ মিছিল করেছে এলাকাবাসী ও ভুক্তভোগী পরিবার।

এ সময় বিক্ষুব্ধ মুক্তিযোদ্ধা ও এলাকাবাসী বীর মুক্তিযোদ্ধাদের কটুক্তিকারী ও বীর মুক্তিযোদ্ধা শাহজাহান সরদারের লাশ দাফনে বাধা প্রদানকারী জঙ্গিনেতা জামাল সরদার ও জালাল সরদার গংদের দ্রুত গ্রেফতার পূর্বক দৃষ্টান্ত মূলক শাস্তির দাবী জানান। এমনকি জড়িতদের দ্রুত আইনের আওতায় আনা না হলে পরবর্তীতে কঠোর থেকে কঠোর আন্দোলন কর্মসূচির হুশিয়ারি দেয় বিক্ষোভকারীরা।

এদিকে এমন ন্যাক্কার জনক ঘটনায় উপজেলার সকল মুক্তিযোদ্ধাসহ বিচারের দাবীতে ফুসে উঠেছে বামরাইলবাসী। উল্লেখ্য ১৯ মে সন্ধ্যা সাড়ে ৭ টায় উপজেলার পশ্চিম বামরাইল গ্রামের মৃত আঃ রব সরদারের ছেলে বীর মুক্তিযোদ্ধা মোঃ শাহজাহান সরদার নিজ বাড়ীতে মৃত্যুবরণ করেন। মরহুম বীর মুক্তিযোদ্ধাকে রাত ১০ টায় গার্ড অব অনার প্রদান ও জানাজা শেষে পারিবারিক কবরস্থানে দাফন করতে গেলে একই গ্রামের নিকট আত্মীয় জামাল সরদার (৫০), জনি সরদার (২২), জালাল সরদার (৪৮) হেলাল সরদার (৪২), সুখি বেগম (৪২), সহ কয়েকজন মিলে লাশ দাফনে পরিবারের সদস্যদের বাধা দেয়। বিষয়টি নিয়ে এলাকার মুসল্লিদের মধ্যে চরম উত্তেজনার সৃষ্টি হয়। একপর্যায় ওই প্রভাবশালীরা বিভিন্ন ভয়ভীতি ও পরবর্তীতে লাশ উপরে ফেলার হুমকি দিয়ে চলে যায়।

এ ঘটনা এলাকা থেকে শুরু করে বিভিন্ন স্থানে ছড়িয়ে পরলে ঘটনা ধামাচাপা দিতে অভিযুক্ত জামাল সরদার ও জালাল সরদার গংরা মৃত বীর মুক্তিযোদ্ধা শাহজাহান সরদারের ছেলে রুবেল সরদার, সোহেল সরদার, রিপন সরদার, মেয়ে সাজেদা বেগম, ছোট ভাই আলমগীর হোসেন সরদারের বিরুদ্ধে অপপ্রচার চালিয়ে মোকাম বরিশাল বিজ্ঞ সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে জামাল সরদারের স্ত্রী সুখি বেগম বাদী হয়ে ২৩ মে ১২৬/২১নং একটি মামলা দায়ের করেছে। 

মরহুম বীর মুক্তিযোদ্ধার ছোট ভাই আলমগীর হোসেন সরদার কান্নার কণ্ঠে সাংবাদিকদের বলেন জঙ্গিনেতা জামাল সরদার ও জালাল সরদার গংরা জমি সংক্রান্ত বিরোধের জের ধরে আমার বড় ভাই বীর মুক্তিযোদ্ধা শাহজাহান সরদারকে দাফনে বাধার সৃষ্টি করেছে এবং বর্তমানে আমাকে ও আমার মৃত ভাইয়ের পরিবারের সদস্যদের এলাকা থেকে উৎখাত, হত্যা করে লাশ ঘুমসহ বিভিন্ন ভয়ভীতি ও হুমকি দিচ্ছে। এমনকি ঘটনা ধামাচাপা দিতে আমাদের বিরুদ্ধে মিথ্যা মামলা দিয়ে হয়রানি করছে। তাদের হুমকির মুখে পরিবারের সকল সদস্যদের নিয়ে প্রতিনিয়ত আতঙ্কে থাকতে হচ্ছে এবং আমরা নিরুপায় ও মানবেতর জীবনযাপন করছি।

বামরাইল ইউনিয়ন মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার মোঃ হায়দার শরীফের সভাপতিত্বে মানববন্ধনে বক্তিতা করেন মহাসচিব বাংলাদেশ মুক্তিযোদ্ধা কল্যাণ পুনর্বাসন সোসাইটি কেন্দ্রীয় কমান্ড ঢাকা বীর মুক্তিযোদ্ধা মোঃ শাহজাহান সরদার, সাবেক সংসদ সদস্য ও বীর মুক্তিযোদ্ধা মোঃ ওয়াদুত সরদার, বীর মুক্তিযোদ্ধা জহিরুল আলম শরীফ, আয়নাল হক হাওলাদার, আঃ আউয়াল হাওলাদার, মরহুম বীর মুক্তিযোদ্ধার ছোট ভাই আলমগীর হোসেন সরদার, গৌরনদী উপজেলার বাটাজোর ইউনিয়ন মুক্তিযোদ্ধা সন্তান কমান্ডের সভাপতি উৎপল চক্রবর্তী, বামরাইল ১নং ওয়ার্ড ইউপি সদস্য মোঃ আরিফ শরীফ প্রমুখ।

এছাড়াও অন্যান্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন, ইউপি সদস্য আব্দুস সালাম সরদার, বামরাইল ইউনিয়ন সেচ্ছাসেবকলীগের সভাপতি আলামিন খলিফা, ২নং ওয়ার্ড আওয়ামীলীগের সভাপতি মোঃ আলামিন ফরাজীসহ শতাধিক মুক্তিযোদ্ধা এবং বিভিন্ন সামাজিক ও রাজনৈতিক ব্যক্তিবর্গ। বিক্ষোভকারীরা ঘণ্টা ব্যাপী মানববন্ধন ও বিক্ষোভ মিছিল করেছে।

এ কেমন ঘটনা, লাশের সাথে শত্রুতা প্রশ্ন রাখেন এলাকাবাসী। কটুক্তিকারী ও লাশ দাফনে বাধা প্রদানকারীদের দ্রুত গ্রেফতার পূর্বক দৃষ্টান্ত মূলক শাস্তির দাবি জানিয়ে প্রশাসনের ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের সু-দৃষ্টি কামনা করেছে মুক্তিযোদ্ধা, এলাকাবাসী ও ভুক্তভোগী পরিবার।

মন্তব্য লিখুন :