উজিরপুরে সংখ্যালঘুর বাড়িতে হামলা, মন্দির-মূর্তি ভাংচুর

বরিশালের উজিরপুর উপজেলার শোলক গ্রামে তুচ্ছ ঘটনাকে কেন্দ্র করে সন্ত্রাসী হামলায় সংখ্যালঘু পরিবারের মন্দির, মন্দিরের মূর্তি ভাংচুর ও এক মহিলাসহ ৩ জন আহত হয়েছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে।

আহতরা উজিরপুর হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছে। এ ব্যাপারে ৫ জনকে আসামী করে উজিরপুর মডেল থানায় অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে।

আহত ও অভিযোগ সূত্রে জানা যায়, গত ৭ জুন সোমবার বিকেল ৫টায় শোলক গ্রামের জহরলাল দাস (৬২) এর বাড়ির মধ্যের কাঁঠাল গাছ থেকে একই এলাকার সেলিম সিকদারের পুত্র সজিব সিকদার (২২) কাঁঠাল কেটে নেওয়ার সময় জহরলালের ভাইয়ের স্ত্রী ঝর্ণা দাস বাধা দিলে তাকে শ্লীলতা ও পিটিয়ে আহত করে।

এরপর সজীব ও তার সন্ত্রাসী বাহিনী ঘরের ভিতর গিয়ে আসবাবপত্র, মন্দিরের মূর্তি ও পূজার উপকরণ, মন্দির ভাংচুর করে। বাধা দিতে গেলে জহরলাল ও সুভাষ দাসকে পিটিয়ে আহত করে।

এ ঘটনা থানা পুলিশ গোপনে সংবাদ পেয়ে ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে। আহতদের স্থানীয়রা উদ্ধার করে উজিরপুর স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করে। এ ব্যাপারে আহত জহরলাল বাদী হয়ে ভাংচুর, নগদ টাকা, স্বর্ণালংকার লুটপাট উল্লেখ করে সজীব সিকদার (২২), সেলিম সিকদার (৪৫), রিয়াজ সিকদার (২২), সিদ্দিক মোল্লা (৪৫), ইকবাল মোল্লা (২২) কে আসামী করে উজিরপুর মডেল থানায় অভিযোগ দায়ের করে।

ঘটনাস্থল পরিদর্শনকারী এসআই হায়দার জানিয়েছেন, মারামারির ঘটনা ঘটেছে। অভিযোগ পেয়েছি তদন্ত সাপেক্ষে ব্যবস্থা নেয়া হবে।

মন্তব্য লিখুন :