তিন বছরেও শেষ হয়নি রাস্তার কাজ

পটুয়াখালী জেলাধীন মির্জাগঞ্জ উপজেলায়  প্রায় তিন বছরেও শেষ হয়নি মহিষকাটা বাজার থেকে ফাটার হাট পর্যন্ত দুই কিলোমিটার রাস্তার কাজ। এতে শুকনো মৌসুমে ধুলার পরে বর্ষা মৌসুম শুরুতে ভোগান্তিতে পড়ছে যানবাহনসহ এলাকার পথচারীরা। 

জানা গেছে, ১ কোটি ৮২ লাখ ৩৬ হাজার টাকা ব্যয়ে গর্ভারমেন্ট অব বাংলাদেশ (জিওবি) অর্থায়নে কাজটি পেয়েছে ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠান কামাল এন্টারপ্রাইজ। পরে তাদের  থেকে কাজটি ক্রয় করে মির্জাগঞ্জ উপজেলার আমড়াগাছিয়ার জাহাঙ্গীর হোসেন। রাস্তাটির নির্মাণ কাজ শুরু করা হয় গত ২০১৮ সালের মাঝামাঝি সময়। ২০২০ সালের অক্টোবর মাসে কাজের মেয়াদ শেষ হওয়ার কথা থাকলেও এক দফা সময় বাড়িয়ে এখন পর্যন্ত মাত্র ৬০ ভাগ কাজ সম্পন্ন হয়েছে। ঠিকাদার জাহাঙ্গীর হোসেন বলেছেন, বৃষ্টি না থাকলে কাজ পুনঃরায় শুরু করা হবে। বৈরি আবহাওয়ার কারনে কাজ সমাপ্তিতে বিলম্ব হচ্ছে। 

স্থানীয় জনসাধারন ও চালকদের অভিযোগ, রাস্তার কাজ ধীর গতিতে হওয়ায় বেড়েছে জনদুর্ভোগ। সবচেয়ে বেশি দুর্ভোগে পড়েছে আমড়াগাছিয়া ইউনিয়নের কিসমত শ্রীনগর, নতুন শ্রীনগর, কাফুলা ও উত্তর ঝাটিবুনিয়ার চার গ্রামের বাসিন্দারা। বিকল্প চলাচলের রাস্তা না থাকায় শুকনো মৌসুমে ধূলো-বালি আর বর্ষায় মাটি-পানি মাড়িয়ে চলতে হয়।

উপজেলা প্রকৌশলী শেখ আজিম-উর-রশিদ বলেন, করোনা ও বৈরি আবহাওয়ার কারণে কাজে ধীর গতি এসেছে। তাই নির্দিষ্ট সময়ে প্রকল্পের কাজ শেষ করা যায়নি বলে জানিয়েছে ঠিকাদার। উর্ধ্বতন কতৃপক্ষ সময় বাড়িয়ে দ্রুত কাজ শেষ করার জন্য ঠিকারদারকে চিঠি দিয়েছে।

মন্তব্য লিখুন :