মুজিববর্ষে ঘর পেয়ে ঘরে ঘরে আনন্দ

সুনামগঞ্জের দোয়ারাবাজার উপজেলার সদর ইউনিয়নের ৯ নং ওয়ার্ডের বড়বন, রায়নগর ও বাঘড়া গ্রামের ৭৭টি ভূমিহীন-গৃহহীন পরিবার তাদের স্বপ্নের ঠিকানা পেয়ে আনন্দ ও উল্লাস প্রকাশ করেছেন। মুজিববর্ষে প্রধানমন্ত্রীর দেয়া এসব ঘর পেয়ে খুশি পরিবারগুলি। বছরের পর বছর ভাঙা ঘরে সন্তান সন্ততি নিয়ে কষ্টে জীবনযাপন করা এসব পরিবার বিনামূল্যে ঘর পেয়ে খুশিতে আত্মহারা।

মুজিব শতবর্ষ উপলক্ষে সারাদেশের ন্যায় সুনামগঞ্জ জেলার দোয়ারাবাজারের ভূমিহীন ও গৃহহীনরা ঘরের সাথে জমির মালিকানা পেয়ে ভীষণ খুশি এসব গৃহহীন ও ভূমিহীন পরিবার। বিনামূল্যে এসব ঘর পেয়ে আনন্দে আপ্লুত সুবিধাবঞ্চিত পরিবারগুলি। তাদের অনেকের কাছে এরকম একটি ঘরের মালিকানা পাওয়া ছিল স্বপ্নের মতো। অবশেষে তাদের এ স্বপ্ন পূরণ করেছেন মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

বুধবার ( ১৬ জুন) সুবিধা পরিবারগুলোর ঘর পরিদর্শন কালে, ঘর পাওয়া মানুষগুলো তাদের অনুভূতি প্রকাশ করে বলেন, যেহেতু ঘর নির্মাণ কাজ ভালো হয়েছে তাই আমাদের ঘর নির্মাণ কাজে যারা সার্বিক সহযোগিতা করেছেন তাদেরকেও অভিনন্দন জানাই। ঘর নির্মাণে ভাল মানের টিন থেকে শুরু করে, সিমেন্ট, বালু, ইট সবই ছিল।

প্রধানমন্ত্রীর আশ্রয়ণ প্রকল্পের মাধ্যমে নিজেদের স্থায়ী ঠিকানা হওয়ায় খুশি দারিদ্র-পীড়িত জনপদের ভূমিহীন ও গৃহহীনরা। নিজেদের মাথা গোজার ঠাই করে দেয়ায় প্রধানমন্ত্রীর জন্য প্রাণ খুলে দোয়া করছেন তারা।

স্থানীয় ইউপি সদস্য ও উপজেলা শ্রমিকলীগের সভাপতি তাজির উদ্দিন বলেন, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ও প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তার দায়িত্বে থাকা অসহায় দরিদ্র গৃহহীন পরিবারগুলোকে মুজিববর্ষের উপহার হিসাবে দেওয়া ঘর গুলো সঠিক ভাবে বাস্তবায়ন করায় প্রধানমন্ত্রী সহ ছাতক দোয়ারাবাজার আসনের এমপি মহোদয়কে ধন্যবাদ জানাই।

প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা আম্বিয়া আহমদ বলেন, দোয়ারাবাজার দুর্গম হাওর এলাকা হলেও ছাতক দোয়ারাবাজার আসনের সংসদ সদস্য মুহিবুর রহমান মানিক মহোদয়ের পরামর্শক্রমে উপজেলা প্রশাসনের নির্দেশনায় দলীয় নেতা কর্মীদের সাথে নিয়ে মুজিববর্ষে প্রধানমন্ত্রীর উপহার ও হতদরিদ্রদের স্বপ্নের ঠিকানা সুষ্ঠ ও সঠিক ভাবে বাস্তবায়ন করা হয়েছে।

এ ব্যাপারে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা দেবাংশু কুমার সিংহ বলেন, দোয়ারাবাজার যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন হাওর এলাকা হলেও প্রধানমন্ত্রীর উপহার ও সুবিধাবঞ্চিত পরিবারগুলির স্বপ্নের ঘরগুলোর নির্মাণ কাজ সঠিক ভাবে বাস্তবায়ন হয়েছে।

মন্তব্য লিখুন :