আদমদীঘিতে ৬ বছরের শিশুকে বলাৎকার

বগুড়ার আদমদীঘিতে ১৯ বছর বছর বয়সী কওমী মাদরাসার ছাত্র ফাহাদ হোসেন ওরফে ফরহাদ কর্তৃক ছয় বছর বয়সী এক শিশু বলাৎকারের শিকার হয়েছে।

বৃহস্পতিবার (১৭ জুন) সন্ধ্যায় আদমদীঘি উপজেলার কুন্দগ্রাম ইউনিয়নের পাল্লাপাড়া গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। ঘটনা ঘটানোর পর থেকে ফাহাদ পলাতক রয়েছে। বর্তমানে বলাৎকারের শিকার শিশু পুত্রকে নওগাঁ সদর হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছে। এ ঘটনায় রাতেই ওই শিশুর বাবা বাদি হয়ে আদমদীঘি থানায় ফাহাদকে আসামী করে একটি মামলা দায়ের করেন।

পুলিশ ও গ্রামবাসী সূত্রে জানা যায়, বৃহস্পতিবার বিকেলে আদমদীঘি উপজেলার কুন্দগ্রাম ইউনিয়নের পাল্লাপাড়ার ছয় বছরের ওই শিশুপুত্র বাড়ির পাশে খেলা করার সময় একই পাড়ার প্রবাসি নজরুল ইসলামের ছেলে কওম্বী মাদরাসার ছাত্র ফাহাদ হোসেন ওরফে ফরহাদ তাদের বাড়িতে কেউ না থাকার সুযোগে সন্ধ্যায় শিশুটিকে আম খাওয়ানোর প্রলোভন দিয়ে বাড়িতে নিয়ে একটি কক্ষে বলাৎকারের ঘটনা ঘটায়।

এতে শিশুটি প্রচন্ড আঘাত প্রাপ্ত হয়ে চিৎকার দিলে স্বজন ও প্রতিবেশিরা শিশুকে অসুস্থ অবস্থায় উদ্ধার করে প্রধমে আদমদীঘি ও পরে নওগাঁ সদর হাসপাতালে ভর্তি করান। ফাহাদের মা এলেনুর বেগম জানায়, ওই সময় তিনি ঔষধ কিনতে স্থানীয় বাজারে গিয়েছিলেন। এসে বিষয়টি জানতে পারেন। ঘটনার পর থেকে তার ছেলে ফাহাদকে খুঁজে পাওয়া যাচ্ছেনা।

বলাৎকারের শিকার শিশুর বাবা জানায়, এ ঘটনায় মামলা দায়ের করেছেন।

এ বিষয়ে আদমদীঘি থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) জালাল উদ্দীন মামলা দায়ের নিশ্চিত করে সাংবাদিকদের জানান, আসামীকে গ্রেফতারে জন্য পুলিশ বিভিন্ন জায়গায় অভিযান চালাচ্ছে।

মন্তব্য লিখুন :