উজিরপুরে ঝুঁকিপূর্ন নির্বাচন কেন্দ্রে পর্যাপ্ত প্রশাসনের হস্তক্ষেপ কামনা

বরিশালের উজিরপুরে শোলক ৮নং ওয়ার্ডের মোরগ প্রতীকের ইউপি সদস্য প্রার্থী শাজাহান বেপারীর সমর্থকদের বিভিন্ন ভয়ভীতি ও হুমকি দিচ্ছে ফুটবল প্রতীকের প্রতিদ্বন্ধী প্রার্থী ইউসুব তালুকদারের সমর্থকরা বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে।

ভোটারদের মধ্যে চরম উত্তেজনা বিরাজ করছে। হুমকির মুখে আতঙ্কে ভোটাররা।

ইউপি সদস্য প্রার্থী মোঃ শাজাহান বেপারী জানান, আসন্ন ২১ জুন সোমবার শোলক ইউনিয়ন পরিষদের নির্বাচনকে ঘিরে আমার প্রতিদ্বন্ধী প্রার্থী একটি প্রভাবশালী মহলের ছত্রছায়ায় বিএনপি নেতা ইউসুব তালুকদার তার সমর্থকদের দিয়ে গত কয়েক দিন ধরে আমার মোরগ প্রতীকের প্রচারনায় বাধা ও বাড়ীতে বাড়ীতে গিয়ে ভোটারদের হুমকি দেয়। এমনকি আমার জনসমর্থন দেখে বেপরোয় হয়ে উঠেছে ইউসুব তালুকদার। সে বহিরাগত সন্ত্রাসী দিয়ে নির্বাচনে বিশৃঙ্খলা সৃষ্টি করতে চায়।

এরই মধ্যে ভোটারদের আতঙ্কিত করার জন্য ভোট কেন্দ্র দামুদারকাঠী আনোয়ারীয়া দাখিল মাদ্রাসার আশে পাশে প্রতিদিন সন্ধ্যা থেকে গভীর রাত পর্যন্ত বহিরাগতরা ধারালো অস্ত্র রামদা, চাপাতি, লোহার পাইপ নিয়ে মোটর সাইকেলে মহড়া দিচ্ছে। এমনকী ১৮ জুন আমার সমর্থকরা প্রচারনার মাইকফিটিং ইজিবাইক নিয়ে দামুদারকাঠী থেকে প্রচারনা শুরে করে প্রতিদ্বন্ধী প্রার্থী ইউসুব হোসেন তালুকদারের বাড়ীর সন্নিকটে পৌছামাত্র তার সমর্থকরা মোরগ প্রতীকের প্রচারনা করতে নিষেধ করে বলে শুধুমাত্র ফুটবল প্রতীকের প্রচারনা চলবে। অন্য কোন প্রতীকের প্রচার করা যাবেনা বলে বিভিন্ন ভয়ভীতি ও হুমকি দিয়ে প্রচারনা বন্ধ করে তাদেরকে তাড়িয়ে দেয়। জনগনের জান মাল হেফাজত  রাখার জন্য ঝুকিপূর্ন ওই কেন্দ্রে পর্যাপ্ত পুলিশ, প্রশাসন ও সাংবাদিকদের উপস্থিতি কামনা করেন ইউপি সদস্য প্রার্থী শাজাহান।

একাধিক ভোটার জানান, শাজাহান বেপারী সফল ইউপি সদস্য। তিনি সুনামের সহিত দীর্ঘদিন ধরে ইউপি সদস্য’র দায়িত্ব পালন করে আসছে। জনপ্রিয়তার শীর্ষে থাকায় তিনি বার বার ইউপি সদস্য হিসেবে নির্বাচিত হন। তার বিরুদ্ধে নেই কোন দুর্নীতি ও অনিয়মের অভিযোগ। তিনি গরীব দুঃখী অসহায় মানুষের বান্ধব। তিনি পুনরায় নির্বাচিত হলে সরকারের উন্নয়নের ধারাবাহিকতা অব্যাহত থাকবে। তাই এবারেও তাকে ভোট দিয়ে বিজয় করার অঙ্গিকার করে জোট বেধেছে ভোটাররা। শাজাহান বেপারী জনপ্রিয়তা ও জনজরিপে এগিয়ে থাকায় প্রতিদ্বন্ধী প্রার্থী ইউসুব হোসেন তালুকদারের সমর্থকরা বিভিন্ন ভয়ভীতি ও হুমকী অব্যাহত রেখেছে।

হুমকীর বিষয়টি প্রতিদ্বন্ধী প্রার্থী ইউসুব হোসেন এড়িয়ে যায়। ওই ওয়ার্ডের ভোটার জয়নাল সরদার, রাজ্জাক সরদার, আবুল সরদার, জব্বার হাওলাদার, সোহরাব বেপারী, হানিফ সরদার, রতন ফরাজী,মোশারফ হোসেন খলিফা, হেমায়েত রাড়ী, জয়নাল রাড়ীসহ একাধিক ভোটার অবাধ সুষ্ঠ ও শান্তিপূর্ন নির্বাচনের দাবী জানিয়ে প্রশাসনের উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের সু-দৃষ্টি কামনা করেছেন। ভোটাররা আরো বলেন জনগন যাকে ভোট প্রদান করবেন সেই নির্বাচিত হবে। নির্বাচনে বিশৃঙ্খলা, অনিয়ম, ভোট কারচুপি, হতে দেয়া হবেনা এবং ভোট প্রদানে বাধার সৃষ্টি করলে কাউকে ছাড় দেয়া হবেনা। কেন্দ্র দখলের কোন সুযোগ নেই। কেউ অসৎ উদ্দেশ্য হাসিল করতে চাইলে তার সমুহ জবাব দিবে এলাকার জনগন।

মন্তব্য লিখুন :