ভূমি ও গৃহহীন ২০টি পরিবার পেলো প্রধানমন্ত্রীর উপহার

নওগাঁর ধামইরহাটে ২য় পর্যায়ে প্রাধানমন্ত্রীর উপহারস্বরূপ দুই শতাংশ জমিসহ ঘর পেলেন ২০টি ভূমিহীন ও গৃহহীন পরিবার।

রবিবার (২০ জুন) সকাল ১০.৩০-এ প্রধানমন্ত্রীর উদ্বোধনের মাধ্যমে উপজেলা অডিটোরিয়ামে উপস্থিত তালিকাভুক্ত ২০টি ভূমিহীন ও গৃহহীন পরিবারের মাঝে উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মো. আজাহার আলী ও উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) গনপতি রায় ঘর ও জমির দলিল হস্তান্তর কার্যক্রম শুরু করেন।

এসময় উপস্থিত ছিলেন, উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান মো. সোহেল রানা, উপজেলা প্রকৌশলী মো. আলী হেসেন, প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা মো. ইস্রাফিল হেসেন, সমাজসেবা কর্মকর্তা সোহেল রানা।

এছাড়াও উপস্থিত ছিলেন, উপজেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক ও সাবেক অধ্যক্ষ মো. শহীদুল ইসলাম, ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আবদুল মমিন, মুক্তিযোদ্ধা আব্দুর রউফ মন্ডল, পৌর কাউন্সিলর মো. মেহেদী হাসান ও স্থানীয় সাংবাদিকবৃন্দ।

জানা গেছে, মুজিববর্ষ উপলক্ষে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা প্রথম পর্যায়ে গত ২৩ জানুয়ারি উপজেলায় ১৫০টি পরিবারকে জমিসহ ঘর প্রদান করেন। ২য় পর্যায়ে সারা দেশে এক যোগে (২০ জুন) উপজেলায় ২০টি পরিবারকে জমিসহ গৃহপ্রদান কার্যক্রমের উদ্বোধন করবেন।

প্রধানমন্ত্রীর উপহার পেয়ে কাটনা বানিয়া পাড়ার বলরাম পাহান ও সুন্দরী রাদামোহন এলাকার মো. খাজেল বলেন, একদিন স্যারেরা এসে বললো তোমাদের ঘর নেই, প্রধানমন্ত্রী তোমাদের জমিসহ ঘর করে দেবে। আজ সেই স্বপ্ন সত্যি পূরণ হলো। প্রধানমন্ত্রীর উপহার আমাদের জীবন বদলে দিল। আর খোলা আকাশের নিচে ঘুমানো লাগবেনা।

উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা মো. ইসরাফিল হেসেন জানান, মাননীয় প্রধানমন্ত্রী মুজিববর্ষ উপলক্ষে জমি ও গৃহ প্রদান কার্যক্রম দ্বিতীয় পর্যায়ে উপজেলার উমার ইউনিয়নে কাটনা বানিয়াপাড়া ১৬ এবং ইসবপুর ইউনিয়ন সুন্দরী রাদামোহন এলাকায় ৪ টিসহ মোট ২০ টি পরিবারের মাঝে দুই শতাংশ জমির দলিলসহ নবনির্মিত ঘর আজকের এই অনুষ্ঠানে মাধ্যমে হস্তান্তর করা হবে। 

১ নম্বর ধামইরহাট ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মো. কামরুজ্জামান বলেন, মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর উপহার স্বরূপ কোন টাকা পয়সা ছাড়াই আমার এলাকায় দশ জন ভূমি ও গৃহহীন পরিবারকে ঘর করে দেওয়া হয়েছে। আজ থেকে তাদেরকে ভূমি ও গৃহহীন অবস্থায় খোলা আকাশের নিচে আর থাকতে হবেনা। প্রধানমন্ত্রীর এমন মহানুভবতার নিদর্শন বিশ্বের আর কোথাও আছে বলে আমার জানা নেই।

উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মো. আজাহার আলী বলেন, জাতীর পিতা বঙ্গবন্ধুর স্বপ্নের সোনার বাংলা বিনির্মাণে মুজিববর্ষে ‘বাংলাদেশের একজন মানুষও গৃহহীন থাকবেনা'- প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার এ ঘোষণা বাস্তবায়নের লক্ষ্যে আশ্রয়ণ-২ প্রকল্পের আওতায় ১ লাখ ১৮ হাজার ৩৮০টি ভূমিহীন ও গৃহহীন পরিবারকে ভূমি ও গৃহ প্রদানের ঘটনা বিশ্বে এটাই প্রথম।

মন্তব্য লিখুন :