গুরুত্বর অসুস্থ খানজাহান (রহ.) দিঘির কুমির মাদ্রাজ

গুরুত্বর অসুস্থ হয়ে পড়েছে বাগেরহাটের ঐতিহ্যবাহী খানজাহান (রহ.) এর মাজার সংলগ্ন দিঘির পুরুষ কুমির মাদ্রাজ।

গত জুন মাসের ১১ তারিখ থেকে অসুস্থ হয়ে পড়েছে কুমিরটি। স্থানীয়রা বলেন কুমিরটি অসুস্থতার খবর পেয়ে বাগেরহাট জেলা প্রাণিসম্পদ কর্মকর্তা ডা. লুৎফার রহমান ছুটে গিয়ে পর্যাপ্ত চিকিৎসার আশ্বাস দিলেও এখনো পর্যন্ত সু-চিকিৎসা পাননি কুমিরটি। 

খানজাহান (রহ.) এর মাজার সংলগ্ন দিঘির পাশের বাসিন্দা বিনা বেগম বলেন, দিঘিতে থাকা দুটি কুমির প্রায়ই আমার ঘাটে আসে। গত জুন মাসের ১১ তারিখে রাতে পুরুষ কুমির “মাদ্রাজ” আমার ঘাটে আসে। সে দিন থেকে কোন খাবাই খাচ্ছে না কুমিরটি। কুমিরটিকে চিকিৎসার জন্য বাগেরহাট পশু হাসপাতালের ডাক্তার ও তার সহযোগী কুমিরটিকে দেখে বলেছে তার উন্নত চিকিৎসা দরকার। কিন্তু প্রায় ১ মাস অতিবাহিত হলেও কুমিরটি সুস্থ্য করার পর্যাপ্ত কোন পদক্ষেপ নেওয়া হয়নি। তিনি বলেন, বাগেরহাট জেলা প্রাণিসম্পদ কর্মকর্তা বলেছিলেন মাদ্রাজকে চিকিৎসা দিতে হলে কুমিরটিকে উপরে উঠাতে হবে আমরা কুমিরটি ধরার পর্যাপ্ত ব্যবস্থা করলেও তারা কোন পদক্ষেপ নেয়নি। তিনি কুমারটির সুচিকিৎসার জন্য জেলা প্রশাসক সহযোগীতা কামনা করেছেন তিনি। 

এদিকে একাধিক সূত্রে জানা  যায়, প্রতিনিয়ত সন্ধার পর জাল পেতে দিঘি থেকে মাছ শিকার করা হয়। এ সময় কুমির ভয়ে আতঙ্কে থাকে। অনেকের ধারনা মাছ ধরার সময় কুমির আঘাত পেতে পারে এবং জালেও ওর পা আ নখ পেঁচানো থাকতে পারে।

বাগেরহাট জেলা প্রাণিসম্পদ কর্মকর্তা ডা. মো. লুৎফর রহমান বলেন, জেলা প্রশাসক মহোদয়ের মাধ্যমে  খবর পেয়ে আমি মাজারে গিয়েছিলাম। দিঘির দুটো কুমিরই আমি দেখেছি। পিলপিল নামের কুমিরটি সুস্থ থাকলেও মাদ্রাজ নামের কুমিরটি অসুস্থ। আমি মাজার কর্তৃপক্ষের সহযোগীতায়  মাদ্রাজ কুমিরটি আটকিয়ে, কন্ট্রোল করে তার চিকিৎসা শুরু করা হবে। তার রোগ নির্ণয় করে চিকিৎসা করতে পারলে আশাকরি সে সুস্থ হয়ে যাবে।


মন্তব্য লিখুন :