ভোলার চরফ্যাশনে কিশোর গ্যাংয়ের চার সদস্য গ্রেফতার

ভোলার চরফ্যাশনের দুলারহাটে দুই সংবাদ কর্মীর পরিবারের সদস্যদের উপর হামলার ঘটনায় মোঃ আলামিন (২৩) মোঃ হান্নান (২৫),মোঃ হিরন (২৭) ও মোঃ শরিফ (২৩) নামের চার কিশোর গ্যাং সদস্যকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। 

সোমবার (২৬ জুলাই) রাত ১২ টার দিকে উপজেলার দুলারহাট থানার বিভিন্ন এলাকা থেকে তাদের গ্রেফতার করা হয়। গ্রেফতারকৃত মোঃ হিরন উপজেলার দুলারহাট থানার আহম্মদপুর ইউনিয়নের ৩ নং ওয়ার্ডের আহম্মদপুর গ্রামের সগির আহম্মদের ছেলে, মোঃ আলআমিন একই এলাকার মোঃ হাবিব বুল্লার ছেলে, মোঃ শরীফ একই এলাকার মোঃ ফারুখের ছেলে ও মোঃ হান্নান একই এলাকার সগির আহম্মদের ছেলে।

এদিকে গত ২০ জুলাই স্থানীয় সংবাদ কর্মী নোমান ও সিরাজুল ইসলাসকে সন্ত্রাসী গ্রুপের মতিন মাঝি ও হানিফের নেতৃত্বে কিশোর গ্যাং বাহিনী পুর্বপরিকল্পিত ভাবে তাদের পিতার বাগানের দুটি অংশ দখল করার উদ্দেশ্য জালের বেড়া দেয় এবং জোর পুর্বক তাদের অংশের বাগান থেকে নারিকেল পারে। এ সময় সংবাদ কর্মী সিরাজুল ইসলাম বাঁধা দেয় এবং নোমান তাদের এসব কর্মকাণ্ডের ছবি তুলতে গেলে অভিযুক্ত হান্নান অশ্লীল ভাষায় গালিগালাজ করতে থাকে একপর্যায়ে হান্নান তাকে হত্যা করার উদ্দেশ্য শাবল নিয়ে তেড়ে আসে। সংবাদ কর্মী সিরাজুল ইসলাম গালগালি করার কারণ জিজ্ঞেস করলে কিশোর গ্যাংয়ের সদস্যরা দেশীয় অস্ত্র ও শাবল নিয়ে দুই সংবাদকর্মী সহ তাদের পরিবারের লোকজনকে হত্যা করার উদ্দেশ্য তেড়ে আসে। সংবাদ কর্মীদের পরিবারের সদস্যরা ওই কিশোর গ্যাংয়ের হাত থেকে রক্ষা পাওয়ার জন্য নিজ ঘরে আশ্রয় নেয়। কিশোর গ্যাংয়ের সদস্যরা নোমান ও সিরাজকে বাহিরে ঘরের বাহিরে বের হলে হত্যা করবে বলে হুমকি দেন।

দুই সংবাদ কর্মীকে হত্যার হুমকির ঘটনায় সংবাদ কর্মী নোমান বাদী হয়ে শনিবার (২৪ জুলাই) দুলারহাট থানায় একটি সাধারণ ডায়রি করেন।

পুলিশ সংবাদ কর্মীদের করা সাধারণ ডায়রি তদন্ত করতে গেলে কিশোর গ্যাংয়ের সদস্যরা ক্ষিপ্ত হয়ে সোমবার সন্ধ্যার ৬ টার দিকে দেশীয় অস্ত্রশস্ত্রে সজ্জিত হয়ে ফের সংবাদ কর্মীদের বাড়িতে গিয়ে পরিবারের সদস্যাদের উপর হামলা করেন। কিশোর গ্যাংদের হামলায় মোঃ নুরুল ইসলাম, মোঃ আনোয়ার হোসেন ও রোজিনা বেগম আহত হয়েছেন। স্থানীয়রা তাদেরকে উদ্ধার করে চরফ্যাশন হাসপাতালে ভর্তি করেন। বর্তমানে তারা চরফ্যাশন হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন। 

এ হামলার ঘটনায় মোঃ নুরুল ইসলাম বাদী হয়ে সোমবার রাতে দুলারহাট থানায় ১২ জনকে আসামী করে একটি মামলা দায়ের করেন। 

দুলারহাট থানার অফিসার ইন চার্জ (ওসি) মোরাদ হোসেন এ তথ্য নিশ্চিত করে বলেন, হামলার ঘটনায় নুরুল ইসলাম বাদী হয়ে ১২ জনকে আসামী করে মামলা দায়ের করেন। ওই মামলায় এজাহারভূক্ত ৪ আসামীকে গ্রেফতার করা হয়েছে। গ্রেফতারকৃত আসামীদের মঙ্গলবার(২৭ জুলাই) সকালে চরফ্যাশন আদালতে প্রেরণ করা হয়েছেন। বাকি আসামিদের গ্রেফতারে অভিযান অব্যাহত রয়েছে।

মন্তব্য লিখুন :