নদী ভাঙ্গন প্রতিরোধে ব্যাম্বো ব্যান্ডেলিং

ফরিদপুর নদী গবেষণা ইনস্টিটিউটের ব্যাম্বো ব্যান্ডেলিং এর মাধ্যমে বাংলাদেশের বিভিন্ন নদীর তীর ভাঙন রোধ, ভূমি পূনঃরুদ্ধার ও নাব্যতা বৃদ্ধি শীর্ষক পাইলট প্রকল্পের মাধ্যমে বাংলাদেশের ৬টি জেলার ১৪টি উপজেলার বিভিন্ন নদীতে নদী ভাঙ্গন রোধে ব্যাম্বো ব্যান্ডেলের কাজ চলছে। যার কয়েকটি প্রকল্প সমাপ্তির পথে। উক্ত প্রকল্পগুলি পরীক্ষামুলক ভাবে চালু হয়েছে।

ফরিদপুর নদী গবেষণা ইন্সটিটউটের প্রধান বৈজ্ঞানিক কর্মকর্তা ও প্রকল্প পরিচালক প্রকৌশলী কাজী রেজাউল করিম জানান, এই প্রকল্পের আওতাভুক্ত জেলাগুলি হচ্ছে ফরিদপুর, রাজবাড়ী, খুলনা, বরিশাল, সিরাজগঞ্জ ও নেত্রকোনা জেলার ১৪টি উপজেলার উপর দিয়ে বয়ে যাওয়া বিভিন্ন নদীতে ব্যাম্বো ব্যান্ডেল নির্মাণ কাজ অব্যাহত রয়েছে। যার মোট প্রকল্প ব্যয় তেইশ কোটি চুয়াল্লিশ লক্ষ টাকা মাত্র। সার্ভের মাধ্যমে ফলাফল পর্যালোচনা করা হচ্ছে।

ফরিদপুর নদী গবেষণা ইন্সটিটউটের প্রধান বৈজ্ঞানিক কর্মকর্তা ও প্রকল্প পরিচালক প্রকৌশলী কাজী রেজাউল করিম আরো জানান, বিভিন্ন অপকর্ম ও দুর্নীতির দায়ে বরখাস্তকৃত নদী গবেষণা ইন্সটিটিউটের সাবেক ভারপ্রাপ্ত মহাপরিচালক প্রকৌশলী ডঃলুৎফর রহমান ঈর্ষান্বিত হয়ে গত ১৭ই জুলাই যমুনা ও বৈশাখী টেলিভিশনে সাংবাদিকদের নিকট মিথ্যা তথ্য পরিবেশন করে ফরিদপুর নদী গবেষনা ইন্সটিটিউটের সুনাম ক্ষুন্ন করেছেন। আমি এর তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়ে প্রকৌশলী ডঃ লুৎফর রহমানকে অনুরোধ করছি তিনি যেন সাংবাদিকদের মিথ্যা ও ভুল তথ্য না দেন।

ফরিদপুর নদী গবেষনা ইন্সটিটিউটের একাধিক কর্মকর্তারা জানান, সদ্য বরখাস্তকৃত সাবেক ভারপ্রাপ্ত মহাপরিচালক প্রকৌশলী ডঃ লুৎফর রহমানের অনৈতিক জন্য নদী গবেষণা পক্ষ থেকে তার বিরুদ্ধে কোতয়ালী থানায় ইতিপূর্বে দুটি জিডি করা হয় যার নং ৮২৫ তাং:০৮/০৫/১৯ ইং ও জিডি নং ১৪২৮ তাং:২২/১০/২০ ইং।

পদ্মার পাড়ের ভাঙ্গন কবলিত এলাকাবাসী জানান, ব্যাম্বো ব্যান্ডেলিং এর কাজ করায় নদী ভাঙ্গন কিছুটা প্রতিরোধ হয়েছে।

মন্তব্য লিখুন :