দেলদুয়ারে মা ও ছেলেকে কুপিয়ে আহত!

টাঙ্গাইলের দেলদুয়ার উপজেলার সদর ইউনিয়নের বারপাখিয়া গ্রামের মা ও ছেলে কে কুপিয়ে মারাত্মক ভাবে আহত করার ঘটনা ঘটেছে।

নাছিমা বেগম ও তার ছেলে প্রান্ত দুই জনেই টাঙ্গাইল সদর হাসপাতালে ভর্তি হয়ে চিকিৎসাদীন অবস্থায় আছেন।

ঘটনা সূত্রে জানা যায়, বসত বাড়িতে মাটি কাটার জের ধরে নাছিমা ও তার ছেলে প্রান্তকে তার দেবর শওকত মিয়া (৪০), মুঞ্জ মিয়া (৪৩) পিতা মৃত - সিরাজ মিয়া, মিনু বেগম (৪৫) পিতা মৃত সিরাজ মিয়া, জাহাঙ্গীর আলম ( ৫০) পিতা মৃত শামছুল রহমান সর্বসাং বারপাখিয়া থানা দেলদুয়ার জেলা টাঙ্গাইল। এরা নাছিমা বেগমকে বিবাহ বিশ বছর অতিবাহিত হলেও নাছিমার স্বামী, দেবর ও নুনাসের নানা অত্যাচারে জীবন যাপন করছে।

ঘটনা সূত্রে জানা যায়, কয়েক মাস পূর্বে মেরেছিল হাসপাতালে ভর্তি হয়ে চিকিৎসা নিয়েছে। নাছিমার স্বামী মঞ্জুর ও তার ভাই বোনের কুপরামর্শে নিজে ও ছেলে প্রান্ত স্ত্রী নাছিমাকে মারপিট করে। পাষান্ড স্বামী অবধি হাসপাতালে দেখতে আসে নাই।

এদিকে বোন ও ভাগীনার নানান মুখী অত্যাচার সইতে না পেরে উপরোক্ত ব্যক্তি দের নামে। মোঃ আকবর হোসেন বাদী হয়ে দেলদুয়ার থানা গত ১০ সেপ্টেম্বর একটি অভিযোগ দায়ের করেন।

এ অভিযোগের ভিত্তিতে মামলার তদন্ত কর্মকর্তা দেলদুয়ার থানা এস আই সালাউদ্দিনকে মুঠোফোনে মামলার বিষয়ে জানতে চাইলে তিনি বলেন, মামলা হয়েছে, মুঞ্জ মিয়া নামে একজনকে আটক করা হয়েছে।

মন্তব্য লিখুন :