সখিপুরে ৪ ইউনিয়নে পাঁচ বিদ্রোহী প্রার্থীকে আ'লীগ থেকে বহিষ্কার

টাঙ্গাইলের সখিপুর উপজেলার চারটি ইউনিয়ন পরিষদ  নির্বাচনে দলীয় শৃঙ্খলা অমান্য করে চেয়ারম্যান পদে ‘বিদ্রোহী’ প্রার্থী হওয়ায় পাঁচজনকে আওয়ামী লীগ থেকে বহিষ্কার করা হয়েছে।

উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি বীর মুক্তিযুদ্ধা কুতুব উদ্দিন আহমেদের সভাপতিত্ব আজ বৃহস্পতিবার (২৮ অক্টোবর) সকাল ১০টায় ডাকবাংলোতে অনুষ্ঠিত উপজেলা আওয়ামী লীগের কার্যনির্বাহী কমিটির সভায় এ সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। পরে উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক শওকত শিকদার আজ দুপুরে সাংবাদিকদের এ তথ্য জানান।

চারটি ইউনিয়নে বহিষ্কৃত পাঁচজন বিদ্রোহী প্রার্থী হলেন উপজেলার কাঁকড়াজান ইউনিয়নে উপজেলা আওয়ামী লীগের প্রাথমিক সদস্য মো. দুলাল হোসেন, বহেড়াতৈল ইউনিয়নে বর্তমান চেয়ারম্যান ও উপজেলা আওয়ামী লীগের সদস্য গোলাম ফেরদৌস, যাদবপুর ইউনিয়নে সাবেক চেয়ারম্যান ও উপজেলা আওয়ামী লীগের সাবেক কোষাধ্যক্ষ খন্দকার বজলুর রহমান, বহুরিয়ায়া ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাবেক  সভাপতি ও ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সদস্য সরকার নূরে আলম মুক্তা এবং একই ইউনিয়নের প্রার্থী আওয়ামী লীগ সমর্থক নিরঞ্জন বিশ্বাস।

বহুরিয়া ইউপির চেয়ারম্যান প্রার্থী নিরাঞ্জন বিশ্বাস বলেন, আমি একজন চলচ্চিত্র পরিচালক ও অভিনেতা। আমি আওয়ামী লীগ সমর্থন করি। তবে উপজেলায় বা ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের কমিটিতে কোথাও আমার নাম নেই। আমাকে বহিষ্কার করলেই কী আর না করলেই কী। আমি তো দলের কোন পদে নেই।

বহেড়াতৈল ইউপির বর্তমান চেয়ারম্যান গোলাম ফেরদৌস বলেন,আমি দলীয় মনোনয়ন চাইনি। আমি বিদ্রোহী নই। আমি স্বতন্ত্র প্রার্থী। তাই আমার বহিষ্কার কার্যকর হবে না।

বহুরিয়া ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাবেক সভাপতি ও বর্তমান সদস্য সরকার নূরে আলম মু্ক্তা বলেন, আমি জনসাধারণের ইচ্ছা ও সম্মান রক্ষার্থেই স্বতন্ত্র প্রার্থী হয়েছি। এছাড়া আমি দীর্ঘদিন ছাত্র রাজনীতি ও আওয়ামী রাজনীতির সাথে জড়িত। তাই আমি দলের প্রতি শ্রদ্ধাশীল, দলীয় সিদ্ধান্ত আমি মেনে নিবো।

উপজেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক জাহাঙ্গীর তারেক বলেন, বাংলাদেশ আওয়ামীলীগ মনোনীত প্রার্থী ও নৌকা প্রতীকের বিপক্ষে বিদ্রোহী প্রার্থী হওয়ার অভিযোগে দলের কার্যনির্বাহী সভায় সর্ব সম্মতিক্রমে তাদের দল থেকে বহিষ্কারের সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।

মন্তব্য লিখুন :