"জয় বাংলা জয় বঙ্গবন্ধু" বলেই চলে গেলেন বীর মুক্তিযোদ্ধা

টাঙ্গাইলের সখিপুরে "জয় বাংলা,জয় বঙ্গবন্ধু" বলেই পরপারে চলে গেলেন বীর মুক্তিযোদ্ধা মো.আবদুল মালেক।

রোববার (৩১ অক্টোবর) সন্ধ্যা ছয়টার দিকে উপজেলার বহেড়াতৈল ইউনিয়নের আমতৈল পূর্বপাড়া গ্রামে একটি নির্বাচনী পথসভায় এ হৃদয় বিদারক মৃত্যুর ঘটনা ঘটে।

আগামী ১১ নভেম্বর ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচন উপলক্ষে টাঙ্গাইলের সখিপুর উপজেলার আমতৈল পূর্বপাড়া গ্রামে ২নং বহেড়াতৈল ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে নৌকা প্রতীকে আওয়ামীলীগ প্রার্থী ওয়াদুদ হোসেনের পথসভা চলছিল। পথসভায় সভাপতিত্ব করছিলেন ওই এলাকারই বীর মুক্তিযোদ্ধা মো.আবদুল মালেক। সভাপতির নির্ধারিত বক্তব্যের শেষে 'জয় বাংলা জয় বঙ্গবন্ধু' বলেই তিনি নিস্তেজ হয়ে বসে পড়েন। ঢলে পড়লেন মৃত্যুর কোলে।

ওই পথসভায় উপস্থিত একাধিক কর্মী সমর্থক জানান, বক্তব্যের শেষে জয় বাংলা, জয় বঙ্গবন্ধু বলেই বীর মুক্তিযোদ্ধা মো. আবদুল মালেক দ্রুত বসে পড়েন। বসে পড়ার পাঁচ মিনিটের মধ্যেই তিনি হৃদরোগে আক্রান্ত হন এবং সেখানেই মৃত্যুবরণ করেন। পরে সভায় উপস্থিত নেতাকর্মীরা তাঁকে  দ্রুত উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে যান।

সেখানে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাঁকে মৃত ঘোষণা করেন। বীর মুক্তিযোদ্ধা মো. আবদুল মালেকের এমন মৃত্যুতে পরিবার, এলাকা ও মুক্তিযোদ্ধাদের মাঝে শোকের ছায়া নেমে এসেছে।

বীর মুক্তিযোদ্ধা আবদুল মালেকের ছেলে কাদের হাসান জানান, বাবা অবসরপ্রাপ্ত সেনা সদস্য ও বীর মুক্তিযোদ্ধা ছিলেন। আজন্ম বঙ্গবন্ধুর আদর্শে জীবন যাপন করতেন এবং ওনি বঙ্গবন্ধুর অনেক বড় ভক্ত ছিলেন। বাংলা এবং বঙ্গবন্ধুর স্লোগান দিতে দিতেই আমার বাবার মৃত্যু হলো।

বহেড়াতৈল ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক সোহেল সরকার বলেন, বীর মুক্তিযোদ্ধা আবদুল মালেক আওয়ামী লীগের একজন নিবেদিত প্রাণ ও একনিষ্ঠ কর্মী ছিলেন। সভাপতির বক্তব্যে তিনি জয় বাংলা জয় বঙ্গবন্ধু বলেই শেষ বিদায় নিলেন। ওনার মৃত্যুর মধ্য দিয়েই ওনি আমাদের বুঝিয়ে দিলেন যে ওনি বঙ্গবন্ধুর কত বড় ভক্ত ছিলেন। ওনার মৃত্যুতে আমরা এলাকাবাসী ও ইউনিয়ন আওয়ামী লীগ গভীর শোকাহত। আমরা শোকসন্তপ্ত পরিবারের প্রতি সমবেদনা জ্ঞাপন করছি।

আজ সোমবার (১ নভেম্বর) বিকেল ৩টায় জানাজা শেষে রাষ্ট্রীয় মর্যাদায় বীর মুক্তিযোদ্ধা মো. আবদুল মালেক এর মরদেহ দাফন করা হয়েছে।

মন্তব্য লিখুন :