সাভারে চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে যত অভিযোগ

ইউপি নির্বাচনকে কেন্দ্র করে সবাইকে ঐক্যবদ্ধ থাকতে হবে, দলের মধ্যে শৃঙ্খলা বজায় রাখতে হবে। ত্যাগী কর্মীদের নিয়ে দল সাজাতে হবে। যারা অপকর্মের সঙ্গে জড়িত তারা আগামীতে আওয়ামী লীগের টিকিট পাবেনা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের এসব কথা হুশিয়ারি দিয়ে জানিয়েছে।

ভালো মানুষ চেয়ারম্যান হলে সমাজ ও দেশ ভালো থাকবে। সমাজ যদি যোগ্য ব্যাক্তিকে বেছে নিতে না পারে, তাহলে সেটা সমাজ ও দেশের জন্য মঙ্গলজনক হবে না। যার জন্য ইউনিয়নবাসীকে এর মাশুল গুনতে হয়। নাগরিক ও সরকারি কর্মচারীদের কর্তব্য: সংবিধানের অনুচ্ছেদ ২১ এর (১) সংবিধান ও আইন মান্য করা, শৃঙ্খলা রক্ষা করা, নাগরিক দায়িত্ব পালন করা এবং জাতিয় সম্পদ রক্ষা করা প্রত্যেক নাগরিকের কর্তব্য।

অন্যদিকে ঘোষণা করে হাইকোর্টের রায়, কারও বিরুদ্ধে নদী দখলের অভিযোগ থাকলে তাকে নির্বাচনের জন্য অযোগ্য এবং সরকারি বা বেসরকারি কোনও ব্যাংক থেকে ঋণ পাওয়ার ক্ষেত্রেও অযোগ্য ঘোষণার নির্দেশনা দিয়েছেন হাইকোর্ট। নদী রক্ষায় প্রতিরোধমূলক পদক্ষেপ হিসেবে নির্বাচন কমিশন এবং কেন্দ্রীয় ব্যাংকের প্রতি এ নির্দেশনা দিয়েছেন হাইকোর্ট।

বিচারপতি মইনুল ইনলাম চৌধুরী ও বিচারপতি মোঃ আশরাফুল কামালের সমন্বয়ে গঠিত হাই কোর্টের ব্রেঞ্চ ২০১৯ সালে এসব নির্দেশনা ও প্রতিরোধমূলক ব্যবস্থাসহ মামলার রায় ঘোষণা করেন।

ঢাকার পাশে আশুলিয়া থানার পাথালিয়া ইউনিওনের পারভেজ চেয়ারম্যানকে নিয়ে গতবছর জাতিয় পত্রিকায় সংবাদ প্রকাশিত হয়। তাতে যা আছে তার কিছু অংশ তুলে ধরা হলো: ঢাকা-আরিচা মহাসড়কের কয়েক কোটি টাকা মূল্যের জমি দখল। (তথ্য সূত্র দৈনিক দিনকাল ১৬ নভেম্বর, ২০২০) ঢাকা-আরিচা মহাসড়কের ইসলামপুর-নয়ারহাট বাজার এলাকায় সড়ক ও জনপথ বিভাগের কয়েক কোটি টাকা মূল্যের জমি দখল ও ভরাট করে মাছের আড়ৎ নির্মাণের অভিযোগ পাওয়া গেছে স্থানীয় এক ইউপি চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে। তাও আবার সড়ক ও জনপথ বিভাগের (সওজ) নির্বাহী প্রকৌশলীর নোটিশ ও স্থানীয় সড়ক উপ-বিভাগের কর্মকর্তা ও পুলিশি বাধা উপেক্ষা করে সড়ক ও জনপথ বিভাগের জমির ওপর এ অবৈধ মৎস্য আড়ৎ নির্মাণ করা হচ্ছে বলে সংশ্লিষ্ট সূত্র জানিয়েছে।

গত বুধবার ঘটনাটি ঘটেছে ঢাকা-আরিচা মহাসড়কের ধামরাই সড়ক উপ-বিভাগের ইসলামপুর ও নয়ারহাট বাজার এলাকায়। স্থানীয় পাথালিয়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মোঃ পারভেজ দেওয়ান ও ফয়জুল হকের নেতৃত্বে নয়ারহাট জোড়াপুলের উত্তর-পশ্চিমাংশে সড়ক ও জনপথ বিভাগের প্রায় ৪ কোটি টাকা মূল্যের ৪০ শতাংশ সরকারি জমি জবরদখল করে তা ভরাট করা হয় সপ্তাহব্যাপী ধরে।

মঙ্গলবার বিষয়টি ধামরাই সড়ক উপ-বিভাগের সেকশন অফিসার মোঃ অভি হাসান জানতে পেরে তাৎক্ষণিক ঘটনাস্থলে এসে অবৈধভাবে সরকারি জমি দখলে বাধা প্রদান করেন ওই ইউপি চেয়ারম্যান পারভেজ দেওয়ান ও সহযোগী ফয়জুল হককে। এরপরও তার বাধা উপেক্ষা করে ওই অবৈধ দখলদাররা শতশত ট্রাক দিয়ে বালু এনে সরকারি জমি ভরাট অব্যাহত রাখেন। পরবর্তীতে সওজ’র ওই কর্মকর্তা নিরুপায় হয়ে বিষয়টি মানিকগঞ্জ সড়ক বিভাগের নির্বাহী প্রকৌশলী মোঃ গাউসুল হাসান মারুফকে অবহিত করেন। সঙ্গে সঙ্গে তিনি অবৈধ দখলদারিত্ব বন্ধ রাখতে ওই অবৈধ দখলদারদের নোটিশ জারি এবং যথাযথ আইনগত ব্যবস্থা গ্রহনের জন্য স্থানীয় থানাপুলিশ ও নিরবাহী ম্যাজিস্ট্রেটকে বিষয়টি অবহিত করেন। এ নোটিশ ও সড়ক বিভাগের কর্মকর্তাদের বাধা বিপত্তি উপেক্ষা করেই ওই ইউপি চেয়ারম্যান ও তার সহযোগীরা সড়ক ও জনপথ বিভাগের জমির ওপর মাটি ভরাট করে অবৈধ দখলদারিত্ব পাকাপোক্ত করতে থাকেন। ফলে গত বুধবার ওই নির্বাহী কর্মকর্তা স্থানীয় থানার অফিসার ইনচার্জ ও উপজেলা নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেটকে (ইউএনও) এ ব্যাপারে যথাযথ আইন গত ব্যবস্থা গ্রহনের জন্য অবহিত করেন।

বুধবার বিকাল ৫টার দিকে উপ-পুলিশ পরিদর্শক মোঃ তানিন হাসান সঙ্গীয় ফোর্স নিয়ে এসে ওই ইউপি চেয়ারম্যানের দখলদারিত্ব এবং সড়ক ও জনপথ বিভাগের জমির ওপর বালু ভরাট কাজ বন্ধ রাখতে বলেন। এরপরও সড়ক ও জনপথ বিভাগের জমির ওপর বন্ধ হয়নি ওই ইউপি চেয়ারম্যানের বালু ভরাট কাজ। পুলিশ এবং সড়ক ও জনপথ বিভাগের কর্মকর্তাদের সামনেই বহাল তবিয়তে চলতে থাকে এ অবৈধ দখলদারিত্ব ও বালু ভরাট। এ ব্যাপারে পাথালিয়া ইউপি চেয়ারম্যান মোঃ পারভেজ দেওয়ান বলেন, বংশী নদীর নয়ারহাট- ইসলামপুর পয়েন্টে আরেকটি নতুন সেতু নির্মাণ হচ্ছে। এ জন্য পুরাতন মাছের আড়ৎ ন্থানান্তর করতে হবে। তাই স্থানিয় লোকজন আমাকে অনুরোধ করেছেন প্রাচীন ঐতিহ্যবাহী ও মাছের আরৎ টিকিয়ে রাখতে। তাই সড়ক ও জনপথ বিভাগের জায়গার পেছনে ব্যাক্তি মালিকানা জমির মালিকের সঙ্গে চুক্তি করে আরৎ নির্মাণের কাজ হাতে নেই। সড়ক ও জনপথ বিভাগের যে জায়গা ভরাট করে আরৎ নির্মাণ করা হচ্ছে তা সড়ক ও জনপথ বিভাগের প্রয়োজনে তাৎক্ষনিক ছেরে দেয়া হবে।

ধামরাই সড়ক উপ বিভাগের সেকশন অফিসার মোঃ অভি হাসান বলেন, আমরা সড়ক ও জনপথ বিভাগের জায়গার ওপর ওই ইউপি চেয়ারম্যানের অবৈধ মাছের আড়ৎ নির্মাণে বালু ভরাট করতে বাধা দিয়েও বন্ধ করতে পারিনি। পরে উর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের জানালে ওই ইউপি চেয়ারম্যানকে নোটিশ দেয়া হয়। এতে কাজ না হলে পুলিশ নিয়ে বাধা দেয়। তারপরও কোনো কাজ না হয়নি। ওই ইউপি চেয়ারম্যান ক্ষমতার দাপটে সড়ক ও জনপথ বিভাগের জমির ওপর বালু ভরাট করে মাছের আড়ৎ নির্মাণ অব্যাহত রাখেন।

গত বুধবার উপ-পুলিশ পরিদর্শক মোঃ তানিন হাসান সঙ্গীয় ফোর্স নিয়ে এসে ওই ইউপি চেয়ারম্যানের দখলদারিত্ব এবং সড়ক ও জনপথ বিভাগের জমির ওপর বালু ভরাট কাজ বন্ধ রাখতে বলেন। এরপরও সড়ক ও জনপথ বিভাগের জমির উপর বন্ধ হয়নি ওই ইউপি চেয়ারম্যানের বালু ভরাট কাজ। পুলিশ এবং সড়ক ও জনপথ বিভাগের কর্মকর্তাদের সামনেই বহাল তবিয়তে চলতে থাকে এ অবৈধ দখলদারিত্ব ও বালু ভরাট।

এ ব্যাপারে পাথালিয়া ইউপি চেয়ারম্যান মোঃ পারভেজ দেওয়ান বলেন, বংশী নদীর নয়ারহাট- ইসলামপুর পয়েন্টে আরেকটি নতুন সেতু নির্মাণ হচ্ছে। এ জন্য পুরাতন মাছের আড়ৎ ন্থানান্তর করতে হবে। তাই স্থানিয় লোকজন আমাকে অনুরোধ করেছেন প্রাচীন ঐতিহ্যবাহী ও মাছের আরৎ টিকিয়ে রাখতে। তাই সড়ক ও জনপথ বিভাগের জায়গার পেছনে ব্যাক্তি মালিকানা জমির মালিকের সঙ্গে চুক্তি করে আড়ৎ নির্মাণের কাজ হাতে নেই। সড়ক ও জনপথ বিভাগের যে জায়গা ভরাট করে আরৎ নির্মাণ করা হচ্ছে তা সড়ক ও জনপথ বিভাগের প্রয়োজনে তাৎক্ষনিক ছেরে দেয়া হবে।

ধামরাই সড়ক উপ-বিভাগের সেকশন অফিসার মোঃ অভি হাসান বলেন, আমরা সড়ক ও জনপথ বিভাগের জায়গার ওপর ওই ইউপি চেয়ারম্যানের অবৈধ মাছের আড়ৎ নির্মাণে বালু ভরাট করতে বাধা দিয়েও বন্ধ করতে পারিনি। পরে উর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের জানালে ওই ইউপি চেয়ারম্যানকে নোটিশ দেয়া হয়। এতে কাজ না হলে পুলিশ নিয়ে বাধা দেই। তারপরও কোনো কাজ না হয়নি। ওই ইউপি চেয়ারম্যান ক্ষমতার দাপটে সড়ক ও জনপথ বিভাগের জমির ওপর বালু  ভরাট করে মাছের আড়ৎ নির্মাণ অব্যাহত রাখেন।

এ ব্যাপারে পুলিশ কর্মকর্তা এসআই তানিন হাসান বলেন, সড়ক ও জনপথ বিভাগের কর্মকর্তাদের সঙ্গে করেই সড়ক ও জনপথ বিভাগের জমির ওপর ওই ইউপি চেয়ারম্যানের অবৈধ আড়ৎ নির্মাণের কাজ বন্ধ করে দেই। এরপরও সে পুনরায় ওই সরকারি জমির ওপর তার অবৈধ দখলদারিত্ব কায়েম করে। তা ভাবতেও অবাক লাগে।

এ ব্যাপারে মানিকগঞ্জ সড়ক বিভাগের নির্বাহী প্রকৌশলী মোঃ গাউসুল হাসান মারুফ বলেন, অবৈধ দখলদারদের নোটিশ দিয়ে তাদের সড়ক ও জনপথ বিভাগের জমির ওপর অবৈধ স্থাপনা নির্মাণে নিষেধ করি। এরপর এ ব্যাপারে যথাযথ আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহনের জন্য স্থানীয় পুলিশ স্টেশন ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেটকে অবহিত করি। এরপরও যদি সড়ক ও জনপথ বিভাগের জমি দখল করে অবৈধ স্থাপনা নির্মাণ করা হয়ে থাকে তাহলে নিয়মিত মামলা করা হবে ওই অবৈধ দখলদারদের বিরুদ্ধে। এতে কোনো সন্দেহের অবকাশ নেই।

সাভারে চেয়ারম্যানের গুদাম থেকে সরকারি ত্রাণ জব্দ। (তথ্য সূত্র যুগান্তর, ০৩/১০/২০২০ইং) ঢাকার সাভারে পাথালিয়া ইউনিয়নের একটি স্কুলকক্ষ থেকে প্রধানমন্ত্রীর ত্রাণভান্ডারের বরাদ্দকৃত বেশ কিছু ত্রাণ জব্দ করেছে উপজেলা প্রশাসন। বৃহস্পতিবার রাতে পাথালিয়া ইউনিয়নের নয়ারহাট এলাকার গণবিদ্যাপীঠ উচ্চ বিদ্যালয় নামে একটি বিদ্যালয়ের দুটি কক্ষ থেকে ৩৯টি শুকনো খাবারের বস্তা ও ৫২টি চালের প্যাকেট জব্দ করে উপজেলা প্রশাসন। স্থানীয়রা অভিযোগ করেন, বিভিন্ন সময় সরকার থেকে বরাদ্দ দেয়া এসব ত্রাণ সামগ্রী জনগনের মাঝে বিতরণ না করে আত্নসাতের উদ্দেশ্যে তা মজুদ করেছিলেন পাথালিয়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান পারভেজ দেওয়ান।

বিষয়টি নিয়ে তারা তীব্র ক্ষোভ প্রকাশ করেন। অভিযোগ অস্বীকার করে পাথালিয়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান ও নবগঠিত সাভার উপজেলা আওয়ামী লীগের সদস্য পারভেজ দেওয়ান বলেন, “একটি মহল আমার সুনাম নষ্ট করতে বিভিন্ন অপপ্রচার চালাচ্ছে। আত্নসাতের উদ্দেশ্যে নয়, বিতরনের জন্যই ত্রাণগুলো রাখা ছিল।“

সাভার উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা শামীম আরা নিরা বলেন, “একটি নির্দিষ্ট সময়ের মধ্যে বরাদ্দকৃত ত্রানগুলো বিতরণ করার কথা ছিল, কিন্তু সংশ্লিষ্ট চেয়ারম্যান তা করেননি। বিষয়টি জানার পর আমরা ঘটনাস্থল থেকে ত্রানগুলো জব্দ করেছি।“

দেওয়ান মোঃ পারভেজ, পিং- মৃত শহীদ সার্জেন্ট সাবেদ দেওয়ান, সাং- চাকলগ্রাম, পাথালিয়া ইউনিয়ন পরিষদ, চেয়ারম্যান অফিস। স্থানীয় লোকজনের কাছ থেকে জানা গিয়েছে যে বংশী নদীর পার ভরাট করে দুইজন ব্যাক্তি যৌথভাবে একটি অবৈধ বালির গদি নির্মাণ করেন যার মধ্যে চেয়ারম্যান প্রায় ৩৩% এর অংশীদারিত্বে আছেন। দেশে নদী দখলদারদের সংখ্যা ৬৫ হাজার ১২৭ জন। এই তালিকায় ঢাকার পাশে আশুলিয়া থানার পাথালিয়া ইউনিয়নের চাকলগ্রামের পারভেজ চেয়ারম্যানও যুক্ত রয়েছে। (তথ্য সূত্র নদীর অবৈধ দখলদারদের তালিকা ও সাভার উপজেলা ভুমি অফিস)।

পারভেজ দেওয়ানের কাছে এই বিষয়ে মুঠোফোনে জানতে চাইলে তার ভাগিনা ফোনটি রিসিভ করে ঢাকা নিউজ ৭১কে বলেন, “মামা অসুস্থ, কথা বলতে পারবে না।“ বলে লাইনটি কেটে দেন।

সংবিধানের অনুচ্ছেদ ২১ এর (১) লঙ্ঘনের বিষয়ে আইনজীবী শেখ মোঃ সাইফুল ইনলামের কাছে জানতে চাইলে তিনি বলেন, “কোনো নাগরিক সংবিধান লঙ্ঘন করলে তার বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া যাবে।“ সাভার উপজেলা নির্বাচন অফিসারের সাথে যোগাযোগের চেষ্টা করেও যোগাযোগ করা সম্ভব হয়নি।

মন্তব্য লিখুন :