মাধবপুরে রাজাকার কায়সারের নামে এখনও বিদ্যালয়ের নাম

হবিগঞ্জের মাধবপুর উপজেলার ছাতিয়াইন ইউনিয়নের একটি প্রাথমিক শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের নাম পরিবর্তনের আবেদন ৩ বছর গড়ালেও এখনোও পরিবর্তন হয়নি।

মানবতাবিরোধী যুদ্ধাপরাধ মামলায় মৃত্যুদণ্ডপ্রাপ্ত আসামী সৈয়দ কায়সারের নামে এই শিক্ষা প্রতিষ্ঠান।

২০১৭ ইং সালে কোন প্রতিষ্ঠান রাজাকারের নামে থাকতে পারবে না এই আদেশ আসলে উপজেলা শিক্ষা কর্মকর্তার নির্দেশানুসারে বিদ্যালয়ের এসএমসি সভাপতি ও শিক্ষকরা নাম পরিবর্তনের আবেদন করেন।

বিদ্যালয়ের সাবেক এসএমসি সভাপতি শহীদুল ইসলাম বাবু জানান, সরকারের নির্দেশ আসলে উপজেলা শিক্ষা কর্মকর্তা সিদ্দিকুর রহমান আমাদের নাম পরিবর্তনের আবেদন করতে বলেন। ম্যানেজিং কমিটি ও শিক্ষকদের সমন্বয়ে ২০১৭ ইং সালের মার্চ মাসে ছাতিয়াইন এসএম কায়সার সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের নাম পরিবর্তন করে ছাতিয়াইন উত্তর সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয় নাম করার জন্য প্রস্তাবনা দিয়ে উপজেলা শিক্ষা কর্মকর্তার বরাবর আবেদন করা হয়।

বর্তমান বিদ্যালয়ের এসএমসি সভাপতি আবু ছালেক জানান, ২০১৭ সালে আবেদন করার পর বিলম্ব হওয়ায় আমরা বিভিন্ন সময় উপজেলা শিক্ষা কর্মকর্তার সাথে যোগাযোগ করা হলে পরিবর্তনের আবেদনটি শিক্ষা মন্ত্রনালয়ে পাঠানো হয়েছে বলে তিনি আশস্থ করেন।

শিক্ষা মন্ত্রনালয় থেকে আবেদনের প্রেক্ষিতে কোন নির্দেশনা পেয়েছে কি না এ ব্যাপারে উপজেলা শিক্ষা কর্মকর্তা (ভারপ্রাপ্ত) দ্বিজেন্দ্র আচার্য্যের সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি জানান, মাধবপুর উপজেলায় রাজাকারের নামে কোন বিদ্যালয় আছে কি না জানতে চাওয়া হলে উপজেলার একটি মাত্র বিদ্যালয় ছাতিয়াইন এস এম কায়সার বিদ্যালয়ের নাম দেয়া হয়েছে, তবে এখন পর্যন্ত নাম পরিবর্তনের কোন নির্দেশনা পাইনি।

উল্লেখ্য ২০১৪ সালের ২৩ ডিসেম্বর আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনাল-২ হবিগঞ্জ মহাকুমার মুসলীম লীগ নেতা সৈয়দ মুহম্মদ কায়সারকে মৃত্যুদণ্ড দেন। একাত্তরে মুক্তিযুদ্ধের সময় হবিগঞ্জ ও ব্রাক্ষণবাড়িয়ায় ১৫২ জনকে গণহত্যা, ২ নারীকে ধর্ষণ, অপহরণ, আটক, নির্যাতন, অগ্নিসংযোগসহ মানবতাবিরোধী বিভিন্ন অপরাধে অংশগ্রহণ এবং প্রত্যক্ষ সহযোগিতার দায়ে এই সাজা দেওয়া হয়।

মুক্তিযুদ্ধের সময় দখলদার পাকিস্তানি সেনাবাহিনীর সহযোগিতায় ৫০০ থেকে ৭০০ 'স্বাধীনতাবিরোধীকে' নিয়ে নিজেই 'কায়সার বাহিনী' গঠন করেন এই মুসলিম লীগ নেতা। মুক্তিযুদ্ধের শেষ দিকে তিনি লন্ডনে পালিয়ে যান। ১৯৭৫ সালের ১৫ আগস্ট জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান সপরিবারে নিহত হওয়ার পর দেশে ফেরেন এই রাজাকার কমান্ডার সৈয়দ কায়সার। এ বছরের ১৪ জানুয়ারী কায়সারের দণ্ড থেকে খালাস চেয়ে করা আপিল আবেদনের ওপর শুনানি শেষে আপিল বিভাগ মৃত্যুদণ্ড বহালের রায় দেন।

মন্তব্য লিখুন :