গবেষণা চৌর্যবৃত্তির সংবাদ প্রকাশ করায় চার সাংবাদিককে উকিল নোটিশ

গবেষণা জালিয়াতির সংবাদ প্রকাশ করায় দৈনিক দেশ রূপান্তরের সম্পাদক অমিত হাবিব, পত্রিকাটির ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিনিধি তানভীর হাসান এবং দৈনিক ভোরের পাতার সম্পাদক কাজী এরতেজা হাসান ও পত্রিকাটির সিনিয়র রিপোর্টার উৎপল দাসের নামে উকিল নোটিশ পাঠিয়েছে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সামাজিক বিজ্ঞান অনুষদের ডিন অধ্যাপক ড. সাদেকা হালিম। এছাড়াও দেশ রূপান্তরের প্রকাশক মাহির আলী খান রাতুলকেও নোটিশ পাঠানো হয়েছে। 

এ অধ্যাপকের বিরুদ্ধে ২০১২ সালে রচিত  ‘পার্টিসিপেশন অব উইমেন ইন অ্যাকুয়াকালচার ইন থ্রি কোস্টাল ডিসট্রিক অব বাংলাদেশ : অ্যাপ্রোচেস টুওয়ার্ডস সাসটেইনেবল লাইভলিহুড’ শিরোনামের গবেষণা প্রবন্ধটি কয়েকটি গবেষণা প্রবন্ধ থেকে চৌর্যবৃত্তির মাধ্যমে লেখার অভিযোগ উঠে। গবেষণায় চৌর্যবৃত্তি শনাক্ত করার সফটওয়্যার টার্নইটইনে যাচাইয়ে গবেষণায় ৮৮ শতাংশ হুবহু কপি করে লেখার প্রমাণ মিলেছে। 

অধ্যাপক হালিমের আইনজীবী ব্যারিস্টার জ্যোতির্ময় বড়ুয়া প্রেরিত উকিল নোটিশে দাবি করা হয়, প্রতিবেদন প্রকাশকারী গণমাধ্যম কর্মীরা প্লেজিয়ারিজম চেক করার ক্ষেত্রে দক্ষ নয়, সেজন্য তাদের এই দায়িত্ব নেয়া উচিত নয়। শিক্ষকদের পূর্ব অর্জিত সম্মান, সামাজিক অবস্থান ও জনসম্মুখে অপমান করতে অন্ধভাবে এ ধরনের প্রতিবেদন প্রকাশ করা হয়েছে। 

উকিল নোটিশে আরও দাবি করা হয়, অধ্যাপক হালিমের বিরুদ্ধে বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষের নিকট চৌর্যবৃত্তির কোন আনুষ্ঠানিক অভিযোগ নেই। সংবাদ প্রতিবেদন প্রকাশকারীদের পেশাগত সততা নিয়ে প্রশ্ন উত্থাপনের কোন ধরনের এখতিয়ার নেই। 

তবে অধ্যাপক হালিমের বিরুদ্ধে গবেষণা নকলের অভিযোগ এনে তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহণের দাবি জানিয়েছেন দেশের কয়েকটি বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক। অভিযোগকারী শিক্ষকগণ ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. মোঃ আখতারুজ্জামানের বরাবর এ অভিযোগ পত্র দেন। অভিযোগ পত্রের বিষয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. মোঃ আখাতারুজ্জামান বলেন, ‘আমি অভিযোগ পেয়েছি। বিষয়টি আমি দেখব।’ 

এর আগে গতকাল বৃহস্পতিবার অধ্যাপক হালিমের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহণের দাবিতে মানববন্ধন করেন বাংলাদেশ মুক্তিযুদ্ধ মঞ্চ। মানববন্ধন থেকে মঞ্চের সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক এ শিক্ষকের বিরুদ্ধে দ্রুত ব্যবস্থা গ্রহণের দাবি জানান। 

উকিল নোটিশ পাঠানোর তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়েছেন বাংলাদেশ জার্নালিজম স্টুডেন্টস কাউন্সিল। প্রতিবাদলিপিতে সংগঠনের নেতারা বলেন, সাংবাদিকদের বিরুদ্ধে আইনি নোটিশ পাঠিয়ে সংবাদপত্র ও সাংবাদিকদের নিয়ন্ত্রণের অপচেষ্টা চালানো হচ্ছে। অধ্যাপক হালিমের বিরুদ্ধে উত্থাপিত অভিযোগ খতিয়ে দেখার দাবি জানান তারা। এসময় তারা আইনি নোটিশ প্রত্যাহারের দাবিও করেন তারা।

মন্তব্য লিখুন :