পিছিয়ে যাচ্ছে গুচ্ছভিত্তিক ভর্তি পরীক্ষা

করোনাভাইরাসের কারণে গুচ্ছভিত্তিক ভর্তি পরীক্ষা পিছিয়ে যাচ্ছে বলে জানা গেছে।

১৯ জুন থেকে আগামী মাসের প্রথম সপ্তাহ পর্যন্ত ২০টি সাধারণ এবং বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে তিনদিনে তিনটি বিভাগে এই ভর্তি পরীক্ষা হওয়ার কথা ছিলো। তবে এখনো এ বিষয়ে কোন চূড়ান্ত সময় ঘোষণা করা হয়নি।

সিলেট শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য ফরিদ উদ্দিন আহমেদ বলেন, ‘করোনা পরিস্থিতির উন্নতি না হওয়া পর্যন্ত ভর্তি পরীক্ষা না পিছিয়ে আর কোন উপায় নেই।

কারণ, এখনও প্রাথমিক আবেদনের কাজই শেষ করা যায়নি। করোনাভাইরাসের চলমান বিধিনিষেধের পর প্রাথমিক আবেদনের জন্য ১০ দিন সময় বাড়ানো হবে। এখন ১৬ জুন পর্যন্ত বিধিনিষেধ চলবে, তাহলেও প্রাথমিক আবেদন করতে সময় লাগবে ২৬ জুন পর্যন্ত এবং তারপর শুরু হবে আবার চূড়ান্ত আবেদন। এসব করতে অনেকটা সময় লাগবে।

এই অবস্থায় কবে পরীক্ষা হবে, তার তারিখও ঘোষণা করা যাচ্ছে না। আগামী শুক্রবার সভা করে পরীক্ষা স্থগিতের কথা জানিয়ে দেওয়া হবে।

গত শিক্ষাবর্ষে সাতটি কৃষি বিশ্ববিদ্যালয় ও কৃষির প্রাধান্য থাকা বিশ্ববিদ্যালয় গুচ্ছভিত্তিতে ভর্তি পরীক্ষা ব্যবস্থা শুরু করেছিল। এবার প্রথমবারের মতো ২০টি সাধারণ এবং বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় গুচ্ছভিত্তিতে ভর্তি পরীক্ষা নিচ্ছে। গুচ্ছভিত্তিক পরীক্ষার মাধ্যমে একজন শিক্ষার্থী নিজ নিজ বিভাগে একটি পরীক্ষা দিয়ে যোগ্যতা ও আসন অনুযায়ী যেকোনো বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তির সুযোগ পাবেন।

আগের সিদ্ধান্ত অনুযায়ী, মোট তিনটি পরীক্ষা হবে ২০টি সাধারণ এবং বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের জন্য। ছিলো। এখন পর্যন্ত সিদ্ধান্ত হলো অনলাইনে নয়, সরাসরি ভর্তি পরীক্ষা হবে এসব বিশ্ববিদ্যালয়ে। মোট তিনটি পরীক্ষা মধ্যে একটি পরীক্ষা হবে বিজ্ঞানের শিক্ষার্থীদের জন্য, আরেকটি মানবিকের জন্য এবং অন্যটি ব্যবসায় শিক্ষার শিক্ষার্থীদের জন্য। ১৯ জুন মানবিক বিভাগের, ২৬ জুন বাণিজ্যের ও আগামী ৩ জুলাই বিজ্ঞান বিভাগের ভর্তি পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা ছিলো।

মন্তব্য লিখুন :