তরুণ গীতিকার সোহাগের লেখা গানে কণ্ঠ দিলেন সামিনা চৌধুরী

উদীয়মান তরুণ গীতিকার মোঃ তাজুল ইসলাম সোহাগের লেখা গান ইতিমধ্যে বেশ জনপ্রিয়তা পেয়েছে। সম্প্রতি সোহাগের লেখা গানে এবার কণ্ঠ দিলেন বিশিষ্ট সংগীতশিল্পী সামিনা চৌধুরী।

বাংলাদেশ বেতার ও বাংলাদেশ টেলিভিশনের তালিকাভুক্ত তরুণ গীতিকার মোঃ তাজুল ইসলাম। বাংলাদেশ বেতারে সম্প্রতি একটি গান রেকর্ড করা হয় তার। রেকর্ডের পর সংগীত প্রেমিকদের নজর কাড়েন তিনি। এতে তার প্রতিভার স্বাক্ষর মেলে। সামিনা চৌধুরীর গাওয়া, মনেরও আড়ালে তুমি রেখোনা চাওয়া/ দুহাত বাড়ালে ঠিকই যাবে যে পাওয়া/ দূর থেকে দেখে যাও কেন বারে-বার/ সাধ কি জাগে বলো আমাকে পাবার/ নেশা ভরা দু,চাখ যেন প্রেমে ভরা। রোমান্টিক ধাঁচের এই গানটিতে সুর করেছেন রুমন হায়াত, প্রযোজনা করেছেন উপ-পরিচালক মোস্তাফিজুর রহমান, সার্বিক নির্দেশনায় ছিলেন পরিচালক-কামাল আহমেদ। 

গানটির দর্শক প্রিয়তার ব্যাপারে আশাবাদ ব্যক্ত করে গীতিকার মোঃ তাজুল ইসলাম সোহাগ বলেন, “সব শ্রেণির শ্রোতার কথা মাথায় রেখেই গানটির কথাগুলো সাজানো হয়েছে। বিশেষ করে রোমান্টিক ধাঁচের গান যারা পছন্দ করেন, তাদের কাছে ‘মনেরও আড়ালে তুমি রেখোনা চাওয়া’ গানটি ভালো লাগবে বলে আমার বিশ্বাস। বাংলা সংগীতের কিংবদন্তীতুল্য শিল্পী সামিনা চৌধুরী আমার গানে কণ্ঠ দিয়েছেন এটা আমার জন্য খুবই আনন্দের ব্যাপার। 

তরুণ এই গীতিকারের সাফল্যের কথা ইতিমধ্যেই ছড়িয়ে পড়েছে। বহুমাত্রিক গুনের অধিকারী এই গীতিকার একাধারে বেতারের ঘোষক, এফএম রেডিওর জকি, কবি, আবৃত্তিকার, টেলিভিশন সংবাদ পাঠক। এর আগে তার লেখা গানে অনেক শিল্পী কণ্ঠ দিয়েছেন। 

তাজুল ইসলাম সোহাগের  বাড়ি ফরিদপুরের সালথা উপজেলার যদুনন্দী ইউনিয়নের যদুনন্দী গ্রামে। ছায়াসুনিবিড় বৃক্ষপল্লবে ঘেরা সোহাগের এই জন্মস্থান ঘিরে রয়েছে নানা স্মৃতি। গ্রামের মেঠোপথ আর গ্রামীণ জনপদের কথা মনে করে আবেগে আপ্লুত হন তিনি। পিতা বীর মুক্তিযোদ্ধা মোঃ বেলায়েত হোসেন সদালাপী একজন মানুষ। বিনয়,অমায়িক ব্যবহারে সোহাগও যেন তার প্রতিচ্ছবি। তিনি ২০০৯ সালে এমবিএ শেষ করে সরকারী প্রতিষ্ঠানে চাকুরীর পাশাপাশি রেডিও টেলিভিশনের সংবাদ উপস্থাপনা করেন।

মন্তব্য লিখুন :