পরপারে পাড়ি জমালেন বুদ্ধদেব দাশগুপ্ত

নক্ষত্রের পতন যেনো থামছেই না সংস্কৃতি অঙ্গনে। একের পর এক বিচ্ছেদের সুর বাজছে দুই বাংলার সংস্কৃতি অঙ্গনে।

বিশিষ্ট চিত্র পরিচালক বুদ্ধদেব দাশগুপ্ত আজ বৃহস্পতিবার (১০ জুন) সকালে কলকাতায় নিজ বাড়িতে শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেছেন। মৃত্যুকালে তার বয়স হয়েছিল ৭৭ বছর।

জানা যায় দীর্ঘদিন ধরে তিনি কিডনিসহ বার্ধক্যজনিত বিভিন্ন সমস্যায় ভুগছিলেন।

চলচ্চিত্র জগতে ব্যাপক সুনাম কুড়ানোর পাশাপাশি সাহিত্য জগতেও পদচারণা ছিলো তার। শিক্ষকতার সাথেও জড়িত ছিলেন তিনি।

তার পরিচালনা জগতে হাতেখড়ি হয় ১৯৬৮ সালে ১০ মিনিটের একটি তথ্যচিত্র দিয়ে। তারপর একে একে ‘দূরত্ব’, ‘নিম অন্নপূর্ণা’, ‘গৃহযুদ্ধ’, ‘মন্দ মেয়ের উপাখ্যান’, ‘স্বপ্নের দিন’, ‘উড়োজাহাজ’–এর মতো ছবি করেছেন।

বিভিন্ন সিনেমার জন্য বহুবার তিনি জাতীয় পুরস্কার পেয়েছেন। এর মধ্যে উল্লেখযোগ্য ‘বাঘ বাহাদুর’, ‘চরাচর’, ‘লাল দরজা’, ‘কালপুরুষ’–সহ একাধিক ছবি।

বুদ্ধদেব দাশগুপ্তর জন্ম হয় ১৯৪৪ সালের ১১ ফেব্রুয়ারি পুরুলিয়ার আনাড়ায়। তার পরিবারের নয় ভাইবোনের মধ্যে তিনি ছিলেন তৃতীয়। বাবা তারাকান্ত দাশগুপ্ত পেশায় চিকিৎসক ছিলেন। রেলের সঙ্গেও যুক্ত ছিলেন তিনি। মাত্র ১২ বছর বয়সে কলকাতায় চলে আসেন বুদ্ধদেব দাশগুপ্ত। হাওড়ার দীনবন্ধু স্কুলে তার শিক্ষাজীবন শুরু হয়। অর্থনীতি নিয়ে স্কটিশ চার্চ কলেজেও পড়াশোনা করেছেন বুদ্ধদেব। বর্ধমান বিশ্ববিদ্যালয়ের অধীনস্থ শ্যামসুন্দর কলেজে অধ্যাপনা করেছেন তিনি।

তার মৃত্যুতে শোক জানিয়ে টুইট করেছেন পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জী। সংস্কৃতি অঙ্গনের বিভিন্ন প্রান্ত থেকেও শোক জানানো হয় বুদ্ধদেব দাশগুপ্তের মৃত্যুতে। 


মন্তব্য লিখুন :