বোমা বিস্ফোরণের শিকার মালদ্বীপের সাবেক প্রেসিডেন্ট

নিজ গাড়িতে উঠতে গিয়ে নিকটস্থ মোটরসাইকেলে রাখা বোমা বিস্ফোরণে আহত হয়েছেন মালদ্বীপের সাবেক প্রেসিডেন্ট ও বর্তমানে পার্লামেন্টের স্পিকার মোহাম্মদ নাসিদ। (সূত্র: বাংলা ট্রিবিউন)

দেশটির এক সরকারি কর্মকর্তা ফরাসি বার্তা সংস্থা এএফপিকে বলেছেন, নাসিদকে হত্যাচেষ্টা করা হয়েছে। তবে আহত হলেও তার অবস্থা স্থিতিশীল।

ভারত মহাসাগরের দেশ মালদ্বীপে প্রায় তিন লাখ ৩০ হাজার সুন্নি মুসলমানের বাস। বিলাসবহুল অবকাশযাপনের জন্য সুপরিচিত এই দেশটিতে প্রায়ই রাজনৈতিক অস্থিরতা চলে। বৃহস্পতিবার (৬ এপ্রিল) গণতান্ত্রিক আন্দোলনের জন্য সুপরিচিত সাবেক প্রেসিডেন্ট মোহাম্মদ নাসিদের ওপর হামলা চালানো হলে ঘটনাস্থল ঘিরে ফেলে সশস্ত্র পুলিশ এবং নিরাপত্তা বাহিনী। 

পুলিশের তরফ থেকে নাসিদের আহত হওয়ার কথা স্বীকার করা হলেও বিস্তারিত কিছু জানানো হয়নি। তারা জানিয়েছেন তাকে মালের এডিকে হাসপাতালে চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে। কর্মকর্তারা জানিয়েছেন, হামলার পর অবকাশকালীন ছুটিতে থাকা পার্লামেন্টের জরুরি অধিবেশন ডাকা হয়েছে।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক নাসিদের পরিবারের এক সদস্য জানিয়েছেন, সাবেক প্রেসিডেন্টের শরীরে বেশ কিছু ক্ষত তৈরি হয়েছে। তাকে অচেতন করে রেখেছেন চিকিৎসকরা। হাসপাতালে নেওয়ার পর নাসিদ সাড়া দেন এবং ডাক্তারদের সঙ্গেও কথা বলেছেন বলে জানান তিনি। তার এক দেহরক্ষীও আহত হয়ে হাসপাতালে ভর্তি হয়েছেন। মালের বাসিন্দারা জানিয়েছেন, পুরো মালে জুড়েই ওই বিস্ফোরণের শব্দ শোনা যায়।

২০০৮ সালে বহু দলের অংশগ্রহণে মালদ্বীপে প্রথমবারের মতো অনুষ্ঠিত নির্বাচনে প্রেসিডেন্ট নির্বাচিত হন মোহাম্মদ নাসিদ। ২০১২ সালে এক অভ্যুত্থানে তাকে ক্ষমতাচ্যুত করা হয়। ২০১৫ সালে তাকে সন্ত্রাসবাদের অভিযোগে ১৩ বছরের কারাদণ্ড দেওয়া হয়। প্রেসিডেন্ট আবদুল্লাহ ইয়ামিন তাকে চিকিৎসার জন্য মুক্তি দিলে তিনি যুক্তরাজ্যে নির্বাসনে চলে যান। তবে ২০১৮ সালে দেশে ফিরে আসেন তিনি।  

চীন থেকে বিপুল পরিমাণ ঋণ নেওয়ায় ইয়ামিন প্রশাসনের কঠোর সমালোচনা করে আসছেন নাসিদ। ২০১৯ সালে নির্বাচনের পর তিনি দেশটির পার্লামেন্টের স্পিকার নির্বাচিত হন। 

মন্তব্য লিখুন :