অচল এক্স-রে মেশিন: রোগাক্রান্ত ফরিদপুর জেনারেল হাসপাতাল

ফরিদপুর জেনারেল হাসপাতালের একমাত্র এক্স-রে মেশিনটি দীর্ঘ ৬ মাস ধরে নষ্ট হয়ে রয়েছে কিন্তু মেরামতের কোন উদ্যোগ নেই।

অন্যদিকে আলট্রাসনোগ্রাম মেশিনটি ভালো থাকলেও নেই কোন কার্যক্রম। কারণ হাসপাতালটিতে নেই পর্যাপ্ত ডাক্তার।

ফরিদপুর জেনারেল হাসপাতালটিতে ৩৭ জন ডাক্তার থাকর কথা থাকলেও রহস্যজনক কারণে কর্মরত আছেন আবাসিক চিকিৎসক সহ ৭ জন। তাই ডাক্তারের অভাবে বাধ্য হয়ে রোগীদের হাসপাতাল এলাকার একাধিক প্রাইভেট হাসপাতালে চিকিৎসা সেবা নিতে যেতে হচ্ছে।

বিশ্বস্ত সূত্রে জানা যায়, জেনারেল হাসপাতালের আশে পাশে প্রায় ১৫/২০ টি বেসরকারি প্রাইভেট হাসপাতাল রয়েছে এরা ফরিদপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের কতিপয় ডাক্তারদের যোগসাজশে ফরিদপুর জেনারেল হাসপাতালটিকে পুঙ্গ করে রেখেছে । দীর্ঘ ১০/১২ বছর ধরে ফরিদপুর জেনারেল হাসপাতালে কোনো ডাক্তার বদলি হয়ে আসলেও, পরবর্তীতে ফরিদপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চলে যায় ।

এক্স-রে মেশিন বিকল ও ডাক্তার শূন্যতার বিষয়ে ফরিদপুর সিভিল সার্জন কার্যালয়ের প্রধান সহকারী জালাল আহমেদ জানান, এক্স-রে মেশিন মেরামত করার জন্য ও ডাক্তার শূন্যতা বিষয়ে স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের ডিজি মহোদয় এবং পরিচালক ( হাসপাতাল ও ক্লিনিক ) কে অবগত করা হয়েছে ।

এই বিষয়ে ঢাকা বিভাগ হাসপাতাল ও ক্লিনিক  পরিচালক ফরিদ আহমেদ বলেন, ফরিদপুরের সিভিল সার্জনের কার্যালয় থেকে সদর হাসপাতালের এক্স-রে মেশিনটি বিকল হয়ে আছে দীর্ঘ দিন ধরে তা আমাকে অবগত করা হয় নাই এবং আমার নিকট নতুন এক্স-রে মেশিনের জন্য কোন ডিমান্ড ( আবেদন ) করে নাই, আবেদন অথবা আমাকে অবগত করলেই প্রয়োজনে নতুন এক্সরে মেশিনের ব্যবস্থা করা হবে।

মন্তব্য লিখুন :