মেরামতসহ প্রশস্তকরণের দাবী এলাকাবাসীর

নওগাঁয় হাঁপানিয়া-মাতাজি সড়কটি খানাখন্দে বেহালদশা

নওগাঁ সদর উপজেলার হাঁপানিয়া থেকে বর্ষাইল বাজার পর্যন্ত প্রায় আট কিলোমিটার সড়ক যেন মরণ ফাঁদ। পাকা সড়কের পিচ উঠে অসংখ্য স্থানে ভাঙাচোরা, খানাখন্দ ও ছোট ছোট ডোবার সৃষ্টি হয়েছে।

এতে যাতায়াতে ভোগান্তি পোহাচ্ছে মানুষ। গুরুত্বপূর্ন এ সড়কটি সরু হওয়ায় একটি ট্রাক গেলে অপরটি পাশে দাঁড়িয়ে থাকতে হয়। রাস্তাটি মেরামতসহ প্রসস্থকরণ করা প্রয়োজন বলে মনে করছেন এলাকাবাসী।

জানা গেছে, নওগাঁ সদর উপজেলার হাঁপানিয়া ইউনিয়নের হাঁপানিয়া বাজার থেকে বর্ষাইল ইউনিয়নের বর্ষাইল বাজার পর্যন্ত সড়কটির দুরুত্ব সাড়ে ৭ কিলোমিটার। এ রাস্তাটি হাঁপানিয়া বাজার থেকে বর্ষাইল বাজার হয়ে জেলার মহাদেবপুর উপজেলার মাতাজি হাট যাওয়ার সহজ পথ। প্রতিদিন এ রাস্তাটি দিয়ে অসংখ্য ট্রাক, ট্রাক্টর, অটোরিকশা, ব্যাটারি চালিত চার্জার ও ভ্যান, মোটরসাইকেলসহ অন্য যানবাহন চলাচল করে।

হাঁপানিয়া বাজার থেকে বর্ষাইল বাজার পর্যন্ত রাস্তাটি দীর্ঘদিন সংস্কার না হওয়ায় পিচ উঠে ভাঙাচোরা, খানাখন্দ ও ছোট ছোট ডোবার সৃষ্টি হয়েছে। ইটের খোয়া বেরিয়ে গেছে। গর্তে বৃষ্টির পানি জমে ছোট ছোট ডোবায় পরিণত হয়েছে। এতে প্রায় ঘটছে দূর্ঘটনা।

চকআতিতা গ্রামের সুইট ও মোশাররফ হোসেন বলেন, রাস্তাটি দীর্ঘদিন থেকে সংষ্কার করা হয়নি। রাস্তাটি সরু হওয়ায় একটি ট্রাক গেলে আরেকটি যেতে পারে না। এই সরু রাস্তা দিয়ে মালবাহী ট্রাক ও ট্রাক্টর চলাচল করাও ঝুঁকিপূর্ন।

রাস্তার নিচে উল্টে পড়ে যাওয়ার আশঙ্কা থাকে। রাস্তার পাশে গড়ে ওঠা স্থাপনা সরিয়ে অবমুক্ত করা হলে বৃষ্টির পানি রাস্তা থেকে সহজেই নেমে যাবে।

লক্ষ্মিপুর ডাঙাপাড়া গ্রামের আলা উদ্দিন বলেন, অপরকিল্পত ভাবে রাস্তারপাশে স্থাপনা গড়ে ওঠায় পানি নিষ্কাশনের কোন ব্যবস্থা নাই। পিচ ওঠে রাস্তার মাঝে যেন ছোট ছোট ডোবা তৈরী হয়েছে। ডোবায় ব্যাটারি চালিত চার্জারের চাকা নেমে যাওয়ায় উল্টো পড়ে যাওয়ার মতো ঘটনা ঘটেছে। হাঁপানিয়া বাজার থেকে মাতাজি হাট যাওয়ার গুরুত্বপূর্ন এ সড়কটি প্রসস্থকরণসহ মেরামত করা প্রয়োজন।

বর্ষাইল ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান মো. শামছুজ্জোহা বলেন, রাস্তাটি বেহাল হওয়ার একমাত্র কারণ হচ্ছে দুইপাশে অপরিকল্পিত ভাবে চালকল গড়ে ওঠায় বৃষ্টির পানি নেমে যেতে পারে না। রাস্তায় পানি জমে থাকায় পিচ উঠে দ্রুতই নষ্ট হয়ে গেছে। বিষয়গুলো নিয়ে আমরা মাসিক সভায় একাধিকবার আলোচনা করেছি।

তিনি বলেন, এই রাস্তাটি দিয়ে মারমা ও ঝাড়গ্রামসহ কয়েকটি গ্রাম, র্কীত্তিপুর ইউনিয়ন এবং মহাদেবপুর উপজেলার মাতাজিহাট যাওয়ার সহজ পথ।

প্রতিদিন প্রায় ২৫০-৩০০ টি যানবাহন চলাচল করে। রাস্তাটির গুরুত্ব বেড়ে যাওয়া মানুষের সুবিধা হয়েছে। তবে দ্রুত রাস্তাটি সংস্কার করা প্রয়োজন।

নওগাঁ সদর স্থানীয় সরকার প্রকৌশল অধিদপ্তরের (এলজিইডি) প্রকৌশলী ইমতিয়াজ জাহিরুল হক বলেন, ওই সড়কটি মেরামতের জন্য ইতোমধ্যে প্রায় ৪ কোটি ১৬ লাখ টাকার টেন্ডার হয়ে গেছে। অল্প কিছু দিনের মধ্যেই মেরামতের কাজ শুরু হবে।

মন্তব্য লিখুন :