দেশের সবচেয়ে বড় রানওয়ের উদ্বোধন আজ

দেশে প্রথমবারের মতো সাগরের বুকে নির্মিত হচ্ছে যাচ্ছে উড়োজাহাজ ওঠানামার রানওয়ের একটা বড় অংশ। কক্সবাজার বিমানবন্দরের নতুন রানওয়ের ১৭শ’ ফুট নির্মাণ করা হবে সাগরের ওপর। এটিই হবে দেশের দীর্ঘতম রানওয়ে। রোববার প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা কক্সবাজার বিমানবন্দর রানওয়ের সমুদ্র সম্প্রসারণ কাজের উদ্বোধন করবেন।

উড়োজাহাজের উড্ডয়ন অবতরণের পথ আকাশ আর স্থলের পাশাপাশি জায়গা করে নিচ্ছে সমুদ্রেও। সমুদ্রের ওপর অনেকটা রানওয়ে পাড়ি দিয়ে তবেই কক্সবাজার থেকে ওঠানামা করবে উড়োজাহাজ।

কক্সবাজার বিমানবন্দর উন্নয়নের এমন মহাপরিকল্পনা বাস্তবায়ন করছে সরকার। কক্সবাজার বিমানবন্দরকে আন্তর্জাতিক মানে উন্নীত করার কাজ চলছে।

বিমান বন্দরের রানওয়ে দৈর্ঘ্য ৬৭৭৫ ফুট থেকে ৯ হাজার ফুট এবং প্রস্থ ১২০ ফুট থেকে ২০০ ফুটে উন্নীত করা হয়েছে। এখন তা বাড়িয়ে ১০ হাজার ৭শ’ ফুটে উন্নীত করা হচ্ছে। সম্প্রসারিত হতে যাওয়া রানওয়ের ১৭শ’ ফুটই থাকবে সমুদ্রের ওপর।

চলমান রয়েছে ৫ হাজার ১শ’ ৭৯ কোটি টাকা ব্যয়ে নতুন টার্মিনাল ভবন, রানওয়ে সম্প্রসারণ ও এয়ার ফিল্ড গ্রাউন্ড লাইটিং সিস্টেম স্থাপন। কক্সবাজার বিমান বন্দর আন্তর্জাতিক মানে উন্নীত হলে এই অঞ্চলে বিনিয়োাগ বাড়বে বলে আশা করেন ব্যবসায়ীরা। 

বেসামরিক বিমান পরিবহন ও পর্যটন প্রতিমন্ত্রী মাহবুব আলী বিমানবন্দর পরিদর্শন শেষে বলেন, কক্সবাজার বিমানবন্দর রানওয়ের এ প্রকল্প পর্যটন ও অর্থনৈতিক বিকাশে বৈপ্লবিক পরিবর্তন আনবে। বেসামরিক বিমান চলাচল কর্তৃপক্ষ বলছে, রানওয়ের সম্প্রসারণ কাজ শেষ হলে এ বিমানবন্দরে আধুনিক প্রজন্মের সুপরিসর উড়োজাহাজ ওঠানামা করতে পারবে।

মন্তব্য লিখুন :