অযৌক্তিক নতুন ভাড়ায় চলছে পরিবহণ

পরিবহণ মালিক সমিতির টানা তিন দিন ধর্মঘটের পরিপ্রেক্ষিতে অবশেষে প্রতি কিলোমিটারে বাস ভাড়া বাড়ানো হয়েছে।

বাংলাদেশ সড়ক পরিবহণ কর্তৃপক্ষ (বিআরটিএ) এবং বাস মালিকদের সভায় ডিজেলের দাম বাড়ায় বাস ভাড়া ২৭ শতাংশ বাড়ানোর সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়।

পরিবহণ ধর্মঘট তুলে নেওয়ার পর রোববার সন্ধ্যা থেকেই রাজধানীতে বাস চলাচল শুরু হয়। রাতেই ঢাকা থেকে দূরপাল্লার বাস ছাড়তে দেখা গেছে।

সোমবার সকালে অনেক দূরপাল্লার বাস এসে রাজধানীতে পৌঁছায়। তারা নতুন নির্ধারিত ভাড়া আদায় করছে। কোনো কোনো পরিবহণ নতুন নির্ধারিত ভাড়ার চেয়েও বাড়তি ভাড়া আদায় করছে বলে অভিযোগ অনেক যাত্রীর। এতে ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন সাধারণ যাত্রীরা।

যাত্রীরা বলছেন, তেলের দাম লিটারে ১৫ টাকা বাড়িয়ে দিয়েছে সরকার। এটি অযৌক্তিক। লিটারে ৫ টাকা করে বাড়ালে সাধারণ মানুষের জন্য ভালো হতো। সব মিলিয়ে সাধারণ মানুষের ওপর ভয়াবহ চাপ তৈরি হয়েছে।

এদিকে লঞ্চের ভাড়া পুনর্নির্ধারণের পর রাত থেকে শুরু হয়েছে লঞ্চ চলাচলও। রাজধানী সদরঘাটসহ বিভিন্ন ঘাট থেকে রাতেই বিভিন্ন গন্তব্যের উদ্দেশে ছেড়ে যায় লঞ্চগুলো। সকালে এসব লঞ্চ নির্দিষ্ট গন্তব্যে পৌঁছায়। লঞ্চের নতুন ভাড়াকেও অস্বাভাবিক বলে উল্লেখ করেছেন যাত্রীরা।

বেসরকারি কোম্পানিতে চাকরি করেন সালাহউদ্দিন, নারায়ণগঞ্জ থেকে উৎসব পরিবহণে গুলিস্তানে যাচ্ছেন তিনি। ভাড়া বাড়ানোর বিষয়ে জানতে চাইলে তিনি যুগান্তরকে বলেন, গুলিস্তানে যেতে আগে ৩৫ টাকা ভাড়া লাগত; তবে নতুন ভাড়ায় এখন ৫০ টাকা গুনতে হচ্ছে।

মন্তব্য লিখুন :