'আলেম সমাজকে রাষ্ট্রীয়ভাবে হেয়প্রতিপন্ন করা হচ্ছে'

ভিন্নমতের রাজনৈতিক ব্যক্তিত্ব বিশেষ করে দেশের আলেম সমাজকে রাষ্ট্রীয়ভাবে হেয়প্রতিপন্ন করতে ব্যস্ত সরকার। পবিত্র রমজান মাসেও প্রায় প্রতিদিন তল্লাশির নামে দেশের নামকরা দ্বীনী শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানগুলোর সাধারণ ছাত্র-শিক্ষকদের হয়রানি করা হচ্ছে। ঢালাওভাবে আলেম গ্রেফতারের কারণে ভীতিকর পরিস্থিতিতেই উদযাপিত হবে এবারের ঈদ। ঈদের আগেই কারাবন্দি আলেম-উলামাদের মুক্তি দিতে হবে। গতকাল বৃহস্পতিবার জাতীয়তাবাদী গণতান্ত্রিক আন্দোলন ও মজলিসে ইত্তেহাদুল মুসলিমীন বাংলাদেশ-এর নেতৃবৃন্দ পৃথক পৃথক বিবৃতিতে এসব কথা বলেন।

জাতীয়তাবাদী গণতান্ত্রিক আন্দোলন : করোনা মহামারি সংক্রমণের কারণে দেশ অর্থনৈতিকভাবে বিপর্যস্ত। লকডাউনে কর্মজীবী মানুষ, ক্ষুদ্র ব্যবসায়ী, প্রবাসী শ্রমিক, পরিবহন শ্রমিকদের জন্য সরকারের পক্ষ থেকে কোনো সহায়তা প্রদান করা হয়নি। অথচ ভিন্নমতের রাজনৈতিক ব্যক্তিত্ব বিশেষ করে দেশের আলেম সমাজকে রাষ্ট্রীয়ভাবে হেয়প্রতিপন্ন করতে ব্যস্ত সরকার। বগুড়ায় প্রকাশ্যে দিবালোকে এক মাদরাসার প্রতিষ্ঠাতা পরিচালককে গুলি করে হত্যা করা হয়েছে। পবিত্র রমজান মাসেও প্রায় প্রতিদিন তল্লাশির নামে দেশের নামকরা দ্বীনী শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানগুলোর সাধারণ ছাত্র-শিক্ষকদের হয়রানি করা হচ্ছে। জাতীয়তাবাদী গণতান্ত্রিক আন্দোলন (এনডিএম)-এর চেয়ারম্যান ববি হাজ্জাজ গতকাল বৃহস্পতিবার এক বিবৃতিতে এসব কথা বলেছেন।

বিবৃতিতে তিনি বলেন, বিতর্কিত ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনের ক্রমাগত অপব্যবহারে দেশে এক ভয়াল পরিবেশ তৈরি হয়েছে। করোনা মহামারির এই সময়ে দেশে টিকা সঙ্কট, পর্যাপ্ত আইসিইউ বেড না থাকা, সাধারণ মানুষের বাকস্বাধীনতায় নগ্ন হস্তক্ষেপ, বিরোধী রাজনৈতিক শক্তি দমনে সরকারের অপকৌশল এবং ঢালাওভাবে আলেম-উলামা গ্রেফতারের কারণে আমরা মনে করি ভীতিকর পরিস্থিতিতেই উদযাপিত হবে এবারের ঈদ। তিনি বলেন, ঢালাওভাবে মাদরাসার শিক্ষক-শিক্ষার্থীদের হয়রানি এবং ইসলামবিরোধী অপপ্রচার বন্ধ করে সরকার সহনশীল গণতান্ত্রিক আচরণ করার ব্যাপারে যতœশীল হবে। অন্যথায় ঐক্যবদ্ধ আন্দোলনের মাধ্যমে সরকারের অগণতান্ত্রিক আচরণ প্রতিহত করা হবে।

মজলিসে ইত্তেহাদুল মুসলিমীন বাংলাদেশ : মজলিসে ইত্তেহাদুল মুসলিমীন বাংলাদেশ-এর আমীর আল্লামা আব্দুল হামিদ পীর সাহেব মধুপুর ও মহাসচিব আল্লামা জাফরুল্লাহ্ খান এক যুক্ত বিবৃতিতে বলেন, ২৬ মার্চ ও তার পরবর্তী অপ্রীতিকর ঘঠনাকে কেন্দ্র করে যে সকল নিরীহ আলেম উলামাদের গ্রেফতার করা হয়েছে আসন্ন ঈদের আগেই তাদের মুক্তি দিন। নেতৃদ্বয় বলেন, নিরীহ নিরপরাধ আলেম-উলামাদের হয়রানি বন্ধ এবং মিথ্যা মামলা প্রত্যাহার করতে হবে। এতে করে সরকারের ভাবমর্যাদা রক্ষা হবে। নেতৃদ্বয় আরো বলেন, এদেশে ইসলাম আক্রান্ত হলে দেশের স্বাধীনতা-সার্বভৌমত্ব হুমকির সম্মুখীন হবে। তারা বলেন, আমরা মনেকরি মাদরাসা শিক্ষাব্যবস্থা আজ গভীর ষড়যন্ত্রের শিকার। কালক্ষেপন না করে ঈদের পর মাদরাসাগুলো খুলে দিতে হবে।

সূত্র: দৈনিক ইনকিলাব

মন্তব্য লিখুন :