খাগড়াছড়িতে পর্যটকদের আকৃষ্ট করছে জালিয়াপাড়া-সিন্দুকছড়ি সড়ক

আঁকাবাকা রাস্তা এবং দর্শনার্থীদের উপস্থিতি দেখে মনে হতে পারে এটি ইউরুপের কোন পর্যটন স্পট।

তবে এটি খাগড়াছড়ি জেলার গুইমারা ও মহালছড়ি উপজেলাধীন বাংলাদেশ সেনাবাহিনীর সদ্য নির্মিত জালিয়াপাড়া-সিন্দুকছড়ি-মহালছড়ি রাস্তা।

এতদিন তেমন কোন পরিচিতি না থাকলেও নতুন করে নির্মাণ হওয়ায় প্রতিনিয়তই দর্শনাথীদের ভিড় জমছে রাস্তাটিতে।

২০১৯ সালে রাঙ্গামাটি মহালছড়ি হয়ে সিন্দুকছড়ি থেকে খাগড়াছড়ির জালিয়াপাড়া পর্যন্ত সড়কটির নির্মাণ কাজ শুরু করেন বাংলাদেশ সেনাবাহিনীর ২০ কনস্ট্রাকশন ব্যাটেলিয়ন।

সবুজ পাহাড়কে অক্ষত রেখেই মেয়াদের ৬ মাস আগে কাজ শেষ করে সড়কটি এখন যান চলাচলের জন্য উদ্বোধনের আপেক্ষায়।

সড়কটি রাঙ্গামাটি থেকে ঢাকার দূরত্ব কমাবে ৬৮ কিঃমিঃ। সময়ের হিসেবে যা প্রায় তিন ঘন্টা। ২৪ ঘন্টাই সড়কটিতে পর্যটনদের নিরাপত্তা দিয়ে যাচ্ছেন বাংলাদেশ সেনাবাহিনী। বসানো হয়েছে কয়েকটি বুথ।

স্থানিয়দের মতে, পাহাড়ের এই নবনির্মিত ১৬.৩ কিঃ মিঃ যেভাবে পর্যটকদের আকৃষ্ট করেছে সেভাবে স্থানীয়দের শিক্ষা, চিকিৎসা ব্যবস্থাও উন্নতিকরন করা হবে। এ রাস্তাটি তিন পার্বত্য জেলাকে যেভাবে সংযুক্ত করেছে সেভাবে পাহাড়ের জীবনযাত্রার অমূল পরিবর্তাণ আসবে বলেও প্রত্যাশা স্থানীয়দের।

প্রতিদিন হাজার পর্যটকে মুখোরিত হচ্ছে উক্ত সড়কটি। পর্যটকরা আশা করেন সরকার অতিশীঘ্রই সড়কটিকে পর্যটন স্পট হিসেবে ঘোষনা দিবেন এবং পর্যটনদের জন্য এলাকাটিকে আরো উন্নতি করবেন।

মন্তব্য লিখুন :