আমি নিজ পদে আছি কিনা তা অবগত নই: সুজন

সম্প্রতি বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের পক্ষ থেকে স্পিন বোলিং ও ব্যাটিং কোচ হিসেবে লঙ্কান রঙ্গনা হেরাথ এবং অ্যাশওয়েল প্রিন্সকে নিযুক্ত করা হয়। প্রক্রিয়া স্বাভাবিক হলেও বিপত্তি বাধে মূলত এখানেই, এই পুরো নিয়োগ প্রক্রিয়া সম্পর্কে কিছুই জানতেন না ক্রিকেট অপারেশন্স কমিটির ভাইস চেয়ারম্যান খালেদ মাহমুদ সুজন।

এই ঘোষণার দুই দিন পর ক্রিকেট অপারেশন্স কমিটির ভাইস চেয়ারম্যান খালেদ মাহমুদ সুজন গণমাধ্যমকে জানিয়েছেন, দুই কোচ নিয়োগের বিষয়ে তিনি কিছুই জানতেন না। উল্টো তিনি আদৌ এই পদে আছেন কিনা সেই বিষয়ে অবগতও নন।

২০১৭ সালের ১১ ডিসেম্বর এই পদে দায়িত্ব পেয়েছিলেন সুজন। একই দিনে অপারেশন্স কমিটির চেয়ারম্যান হিসেবে দায়িত্ব পেয়েছিলেন আকরাম খান। কিন্তু প্রায় ৪ বছর পার হয়ে গেলেও সুজন জানিয়েছেন, তাকে কোন মিটিংয়েও ডাকা হয় না।

এদিকে স্পিন বোলিং কোচ হিসেবে হেরাথকে নিয়োগ দিতে সুজনই বোর্ডকে সুপারিশ করেছিলেন। গণমাধ্যমকে সুজন বলেন, 'আমি তো ক্রিকেট অপারেশন্সের ভাইস চেয়ারম্যান। কিন্তু আমি কিছুই জানি না। কোচ নিয়োগের বিষয়টি জেনেছি আপনাদের থেকে না হয় পত্রিকা-টেলিভিশন দেখে। আমাকে কেউ জানায় নি।'

'হয়তো জৈব সুরক্ষা বলয়ে ছিলাম বলে, কিন্তু সেখানে তো আমার কাছে ফোন ছিল। কিন্তু আমাকে জানানো হয়নি। এটা খবর শুনে জানলাম অ্যাশওয়েল প্রিন্স এবং রঙ্গনা হেরাথকে নিয়োগ দেয়া হয়েছে। হেরাথের কথা আমিই প্রথমে বলেছিলাম বিসিবিকে' আরও যোগ করেন তিনি।

ভাইস চেয়ারম্যানের পদে থাকা প্রসঙ্গে সুজন বলেন, 'আমি আসলে ভাইস চেয়ারম্যান আছি কিনা অপারেশন্সের সেটাও আমি নিশ্চিত না। নামে আছি হয়তো, কারণ কোন মিটিংয়ে যাওয়া হয় না বা কখনো ডাকেও না।'

সবশেষে তিনি বলেন,'মাঝের দুই বছর তো ইমেইলই পাইনি, এখন কিছু কিছু পাই। আমার কথা হচ্ছে যে যদি আমাকে না জানানোর প্রয়োজন মনে করে তো আমি জানব কিভাবে?'

মন্তব্য লিখুন :