ইনিংস বড় করতে পারল না বাংলাদেশ

লিটন দাসের প্রথম সেঞ্চুরি ও মুশফিকুর রহিমের ৯১ রানের দুর্দান্ত ইনিংসে ভর করে দাঁড়িয়েছিল বাংলাদেশ।

আশা করা হচ্ছিল বড় সংগ্রহ দাঁড় করাবে বাংলাদেশ।

কিন্তু দ্বিতীয় দিনে ব্যাটিং ধস নামল টাইগারদের। সাত সকালে দ্রুত উইকেট নিয়ে বাংলাদেশকে সাড়ে তিনশর আগেই বেধে ফেলতে পারবে বলে আভাস দিয়েছিল পাকিস্তানের বোলাররা।

সেটাই হলো। ৩৩০ রানে গুটিয়ে গেল বাংলাদেশের প্রথম ইনিংস।

মুশফিকের আউটের পর তাইজুলকে নিয়ে একটা জুটি গড়েছিলেন অলরাউন্ডার মেহেদী হাসান মিরাজ। সেটা ভাঙতে শাহিন শাহ আফ্রিদিকে আক্রমণে ফেরান বাবর আজম। কাজেও লাগল তার এই পরিকল্পনা। আফ্রিদির বলে কট বিহাইন্ড হয়ে গেলেন তাইজুল।

১ চারে ২৮ বলে ১১ রান করেন তাইজুল। ভাঙে ৪৭ বল স্থায়ী ২৮ রানের জুটি। এরপর আবু জায়েদ ও এবাদতের উইকেট দ্রুত তুলে নেন হাসান আলি। ৫ উইকেট শিকারের মাইলফলক ছুঁয়ে ফেলেন তিনি।

সঙ্গীর অভাবে স্কোর বড় করতে পারলেন না মিরাজ। ৬ বাউন্ডারিতে ৬৮ বলে ৩৮ রানে অপরাজিত থেকে মাঠ ছাড়েন এই স্পিন-অলরাউন্ডার।

মন্তব্য লিখুন :