স্বপ্নের বিশ্বকাপ খেলবে নারী ক্রিকেট দল

করোনাভাইরাসের নতুন ধরন ‘ওমিক্রনে’র প্রকোপ শুরু হয়েছে জিম্বাবুয়েতে। বাতিল হয়েছে সেখানে নারী ওয়ানডে বিশ্বকাপের বাছাইপর্ব। সেটাই আশীর্বাদ হয়ে এসেছে বাংলাদেশের নারী ক্রিকেটারদের জন্য। দীর্ঘ অপেক্ষার অবসান ঘটেছে। প্রথমবারের মতো নারী ওয়ানডে বিশ্বকাপের মূল পর্বে খেলবেন বাংলাদেশের নারী ক্রিকেটাররা।

শনিবার আইসিসি জিম্বাবুয়েতে চলমান বাছাইয়ের টুর্নামেন্টটি বাতিলের ঘোষণা করে। করোনাভাইরাসের প্রভাবের কারণে এদিন শ্রীলংকা ও ওয়েস্ট ইন্ডিজের ম্যাচ বাতিল হওয়ার পরই আইসিসি এমন সিদ্ধান্তের কথা জানায়।

এতেই আগে আইসিসি র‌্যাংকিংয়ে শীর্ষ আটের মধ্যে থাকা বাংলাদেশের নারী ক্রিকেটারদের সুযোগ মিলেছে ওয়ানডে বিশ্বকাপে খেলার। স্বপ্ন ছোঁয়ার আনন্দে নাওয়া-খাওয়া ভুলে মেতে ছিলেন নারী ক্রিকেটাররা।

ওয়ানডে ক্রিকেটে বাংলাদেশের মেয়েদের পথচলা শুরু হয়েছে একযুগ আগে থেকে। বাছাইপর্বের আগেই এবার দল নিয়ে বেশ আশাবাদী ছিল টিম ম্যানেজমেন্ট।

জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে তিন ম্যাচের সিরিজে দাপুটে জয় নিয়ে বাছাই পর্ব শুরু করে সালমা-জাহানারা। শুরুটাও হয় দুর্দান্ত। যুক্তরাষ্ট্রকে একেবারে উড়িয়ে দেয় বাংলাদেশের নারী ক্রিকেটাররা। এরপর পাকিস্তানকে হারিয়ে বিশ্বকাপের সম্ভাবনা আরও বেশি উজ্জ্বল হয়ে ওঠে তাদের কাছে।

থাইল্যান্ডের বিপক্ষে বৃষ্টি আইনে বাংলাদেশের নারী ক্রিকেটাররা হেরে যায় ১৬ রানে। তবুও সঠিক পথেই ছিল। তবে জিম্বাবুয়ে ও দক্ষিণ আফ্রিকার আশপাশের দেশগুলোর করোনা পরিস্থিতি খুই খারাপের দিকে যাচ্ছে।

সেসব দিক বিবেচনা করেই বাছাই পর্ব আইসিসি বাতিল করেছে। বিশ্বকাপে সুযোগ পাওয়ার অনুভূতি প্রকাশ করেছেন নারী খেলোয়াড়রা।

মন্তব্য লিখুন :